ভূমধ্যসাগর থেকে ৩৬৭ অভিবাসীকে উদ্ধার

ভূমধ্যসাগর থেকে ৩৬৭ অভিবাসীকে উদ্ধার করেছে মরক্কো।  গতকাল বৃহস্পতিবার দেশটির নৌবাহিনী এ উদ্ধার কার্যক্রম চালায়। মরক্কোর সামরিক সূত্র জানায়, উদ্ধার ব্যক্তিদের অধিকাংশই সাব-সাহারার অভিবাসী। তাঁরা স্পেনে যাওয়ার চেষ্টা করছিল বলেও দাবি করা হয়েছে।

আজ শুক্রবার সংবাদ সংস্থা এএফপি এ তথ্য জানায়।

এএফপি জানায়, উদ্ধার করা অভিবাসীদের মধ্যে নারী ও শিশু রয়েছে। তাঁরা কয়েকটি ছোট নৌযানে নানা অসুবিধার মধ্যে ছিল। নৌবাহিনীর বিভিন্ন ইউনিট তাদের সকলকে নিরাপদে উদ্ধার করে পার্শ্ববর্তী বন্দরে নিয়ে যায়।

খাবার আনতে গিয়ে পদপিষ্ট হয়ে ১৫ নারীর মৃত্যু

মরক্কোতে দরিদ্রদের মধ্যে খাবার বিতরণের সময় পদপিষ্ট হয়ে কমপক্ষে ১৫ নারী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ৪০ জন।

স্থানীয় সময় রোববার দেশটির ইসাউরিয়া প্রদেশের বোউলালাম শহরে এ ঘটনা ঘটে। সে সময় একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান কয়েকশ নারীর মধ্যে খাবার বিতরণ করছিল।

আল-জাজিরা টেলিভিশনের খবরে বলা হয়, হতাহত নারীদের বেশিরভাগেরই বয়স চল্লিশের ওপরে। আহতদের স্থানীয় বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মরক্কোর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়, দুর্ঘটনায় হতাহতদের সর্বোচ্চ সাহায্যের নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির বাদশাহ মুহাম্মদ। এ ছাড়া একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

মসজিদ আলোকিত করেছে পুরো গ্রাম!

একেবারে অজপাড়াগাঁ তাদমামেত। ৪০০ বাসিন্দার গ্রামটিতে বেশিরভাগ মানুষের নেই কোনো গাড়ি, মোবাইল ফোন বা ইন্টারনেট সুবিধা। বিদ্যুৎ সুবিধাও ছিল নাগালের বাইরে। ফলে শীতের দিনে তীব্র কষ্টের মধ্যে যেত গ্রামবাসীর জীবন। তবে এখন পরিস্থিতি পাল্টে গেছে। গ্রামের বেশির ভাগ ঘরেই পৌঁছেছে বিদ্যুৎ। আর সেই বিদ্যুতের উৎস একটি মসজিদ।

বিবিসির খবরে বলা হয়, মরক্কোর অ্যাটলাস পর্বতমালায় অবস্থিত গ্রামটির মসজিদের ছাদে বসানো হয়েছে সোলার প্যানেল। সেগুলো থেকে উৎপাদিত সৌরবিদ্যুৎ মসজিদটির চাহিদা মিটিয়ে আলো পৌঁছে দিচ্ছে গ্রামের বেশিরভাগ ঘরে।

বজ্রপাতে পুড়ল গাড়ি, যাত্রীরা অক্ষত!

ঘন কালো মেঘে ঢাকা আকাশ। চলছে অবিরাম তর্জন-গর্জন। হঠাৎ আলোর ঝলকানি দিয়ে হলো বজ্রপাত, তা-ও আবার একটি চলন্ত গাড়ির ওপরে। বাজের আগুনে গাড়িটি পুড়ে ধোঁয়া বের হতে লাগল। পরে সবাইকে অবাক করে দিয়ে গাড়ির ভেতর থেকে অক্ষত অবস্থায় বের হয়ে এলেন যাত্রীরা।     

ওপরের বর্ণনাটি কোনো হলিউডি ছবির নয়। একেবারে বাস্তব জীবন থেকে নেওয়া। সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ইউটিউবে ছড়িয়ে পড়ে এমনই একটি ভিডিও। 

৩৬ সেকেন্ডের ওই ভিডিওটিতে দেখা যায়, বাজ পড়ার সঙ্গে সঙ্গে ধোঁয়ায় ঢেকে যায় ওই জায়গা। গাড়িটি থেকেও বের হতে থাকে ধোঁয়া। চালক কিছুদূর এসে গাড়িটি থামান।

গাড়ি ও স্যুটকেসবন্দি করে মানুষ পাচারের চেষ্টা!

গাড়ি ও স্যুটকেসবন্দি করে পাচারের সময় আটক করা হয়েছে মরক্কোর দুই নাগরিককে। তাদের পাচারের গাড়িতে লুকানো অবস্থায় দুজন ও স্যুটকেসবন্দি অবস্থায় একজনকে উদ্ধার করা হয়েছে।

মরক্কোর পুলিশ জানিয়েছে, পাচারকারীরা ওই তিন ব্যক্তিকে মরক্কো থেকে স্পেনের সিউটা এলাকায় নিয়ে যাচ্ছিল।

স্থানীয় সময় সোমবার দুই ব্যক্তিকে একটি গাড়ির ড্যাশবোর্ড ও পেছনের সিটের নিচ থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। ধারণা করা হচ্ছে, তারা গিনির অধিবাসী।

চিড়িয়াখানায় হাতির ছোড়া পাথরে শিশুর মৃত্যু!

আফ্রিকার দেশ মরক্কোর একটি চিড়িয়াখানায় হাতির ছুড়ে মারা পাথরের আঘাতে মারা গেছে সাত বছরের এক মেয়েশিশু। গতকাল বৃহস্পতিবার দেশটির রাবাত চিড়িয়াখানায় এই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে। 

প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে বিবিসি অনলাইন জানায়, শিশুটি হাতির খাঁচার নিরাপদ দূরত্বে থেকেই হাতিটিকে দেখছিল। আর পাথর ছোড়ার আগ পর্যন্তও বাক নামে পরিচিত হাতিটির মধ্যে কোনো অস্বাভাবিক আচরণ লক্ষ করা যায়নি। হাতিটি নিজের জায়গাতেই ছিল। সেখান থেকেই হঠাৎ শুঁড়ে করে পাথর কুড়িয়ে ছুড়ে মারে।

মরক্কোয় স্কুলবাস-গ্যাস ট্যাঙ্কারের সংঘর্ষ, নিহত ৩৩

মরক্কোর চিবিকা জেলার তান-তান শহরে একটি স্কুলবাসের সঙ্গে গ্যাস ট্যাঙ্কারের মুখোমুখি সংঘর্ষে শিশুসহ ৩৩ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে সাতজন।

মরক্কোর কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে বিবিসির খবরে বলা হয়, স্থানীয় সময় শুক্রবার সকালে শিশুদের নিয়ে একটি ক্রীড়া প্রতিযোগিতা থেকে ফিরছিল বাসটি। পথে গ্যাস ট্যাঙ্কারের সঙ্গে সংঘর্ষের পর এটিতে আগুন ধরে যায়। এতে নয়জন আহত হয়। হাসপাতালে নেওয়ার পর এদের মধ্যে দুজন নিহত হয়। নিহত ব্যক্তিদের মধ্যে হাসান ইসেনগার নামের একজন ক্রীড়াবিদও রয়েছেন।

দুর্ঘটনা থেকে বেঁচে যাওয়া একজন বলেন, ‘আমরা ঘুমাচ্ছিলাম। হঠাৎ বিস্ফোরণের শব্দ শুনি। এর পরপরই গাড়িতে আগুন ধরে যায়।’