‘যুদ্ধ অব্যাহত রাখলে সৌদিকে করুণ পরিণতি ভোগ করতে হবে’

ইয়েমেনের হুতি আনসারুল্লাহ আন্দোলনের নেতা আব্দুল মালেক আল-হুতি বলেছেন, তাঁর দেশের বিরুদ্ধে যদি যুদ্ধ অব্যাহত রাখা হয় তাহলে সৌদি নেতৃত্বাধীন কথিত আরব জোটকে করুণ পরিণতি ভোগ করতে হবে।

যুদ্ধবিধ্বস্ত ইয়েমেনে অস্ত্র সরবরাহ করছে আমেরিকা

যুদ্ধবিধ্বস্ত ইয়েমেনের হুতি আনসারুল্লাহ আন্দোলনের গেরিলাদের পরাজিত করার জন্য গোপনে বিরোধী শক্তির কাছে অস্ত্র সরবরাহ করছে আমেরিকা।

গতকাল বুধবার মার্কিন টেলিভিশন চ্যানেল সিএনএনে সম্প্রচারিত একটি ফুটেজে অস্ত্র সরবরাহের এই চিত্র দেখা গেছে।

ওই ফুটেজে দেখা যায়, খুব ভোরে অন্ধকারের মধ্যে মার্কিন নির্মিত ‘আর্মড ভেহিক্যালে’ করে এসব অস্ত্র ইয়েমেনের বন্দরনগরী এডেনে নেওয়া হচ্ছে। এসব অস্ত্র সরবরাহ করার অর্থ হচ্ছে সৌদি আরবকে সমর্থন দেওয়া ও যুদ্ধবিধ্বস্ত ইয়েমেনের বিরুদ্ধে সৌদি আগ্রাসনকে জোরদার করার প্রচেষ্টা চালানো।

যুদ্ধ বন্ধে ইয়েমেন সরকার ও বিচ্ছিন্নতাবাদীদের মধ্যে চুক্তি

ইয়েমেনের দক্ষিণাঞ্চলীয় বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সঙ্গে ক্ষমতা ভাগাভাগি করতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে দেশটির সরকার। সরকার ও বিচ্ছিন্নতাবাদীদের মধ্যকার কয়েক মাস ধরে চলা যুদ্ধের অবসান ঘটাতে সৌদি আরবের মধ্যস্থতায় এ চুক্তি হয়েছে বলে জানা গেছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, চুক্তি অনুযায়ী ইয়েমেনের উত্তর ও দক্ষিণাঞ্চল থেকে সমসংখ্যক সদস্য নিয়ে আগামী ৩০ দিনের মধ্যে নতুন মন্ত্রিসভা গঠিত হবে।

সৌদিতে আরো ভয়াবহ আঘাত করবে ইয়েমেন

ইয়েমেনের সশস্ত্র বাহিনীর চিফ অব স্টাফ মেজর জেনারেল মোহাম্মাদ আব্দুল কারিম আল ঘামারি বলেছেন, সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের বিরুদ্ধে দীর্ঘ মেয়াদি যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত রয়েছে ইয়েমেন।

গণমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে আব্দুল কারিম বলেন, সৌদি আরব আগ্রাসন অব্যাহত রাখলে ভবিষ্যতে আমাদের পাল্টা আঘাত হবে আরো ভয়াবহ। তিনি বলেন, ‘আমাদের সশস্ত্র বাহিনী দেশ রক্ষায় পূর্ণ প্রস্তুত রয়েছে।’

এবার সৌদিবিরোধী অভিযানের ভিডিও প্রকাশ করেছে হুতিরা

ইয়েমেনের হুতি বাহিনী সৌদি আরবের বিরুদ্ধে যে সামরিক অভিযান চালিয়েছে, তার ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ করা হয়েছে। ৭২ ঘণ্টার ওই অভিযানে সৌদি আরবের বেশ কয়েকজন সামরিক কর্মকর্তা এবং কয়েক হাজার সেনাসদস্য আটক হয়েছে বলে দাবি করা হচ্ছে।

গতকাল রোববার বিকেলে ইয়েমেনের রাজধানী সানায় এক সংবাদ সম্মেলনে দেশটির সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইয়াহিয়া সারি সৌদি আরবের বিরুদ্ধে পরিচালিত অভিযানকে ‘আল্লাহর পক্ষ থেকে বিজয়’ বলে অভিহিত করেন।  

হাজারো সৌদি সেনা আটকের দাবি হুতিদের

সৌদি আরব ও ইয়েমেন সীমান্তের নিকটবর্তী অঞ্চলে বড় ধরনের হামলার পর বিপুলসংখ্যক সৌদি সেনাকে আটক করার দাবি করেছে হুতি বিদ্রোহীরা।

সৌদি শহর নাজরানের কাছে সৌদি সেনার তিনটি ব্রিগেড আত্মসমর্পণ করেছে বলে দাবি করেছেন হুতি মুখপাত্র কর্নেল ইয়াহিয়া সারিয়া। গণমাধ্যম বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।

ইয়েমেনে সৌদি জোটের বিমান হামলায় নিহত অন্তত ১০০

ইয়েমেনের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ দামারে হুতি বিদ্রোহীদের পরিচালিত এক বন্দিশালায় সৌদি আরব নেতৃত্বাধীন জোটের একাধিক বিমান হামলায় গতকাল রোববার কমপক্ষে ১০০ ব্যক্তি নিহত এবং আরো অনেকে আহত হয়েছেন বলে বিদ্রোহীদের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

ইয়েমেনে কাজ করা রেড ক্রসের প্রধান ফ্রানজ রোচেনস্টিন ঘটনাস্থল পরিদর্শনের পর জানিয়েছেন, নিহতদের সংখ্যা আরো বেশি হতে পারে। আটক ব্যক্তিদের মধ্যে অল্প কয়েকজন হামলা থেকে রক্ষা পেয়েছেন। বার্তা সংস্থা এপির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

ইয়েমেনের কারাগারে সৌদি জোটের বিমান হামলা, নিহত ৪০

ইয়েমেনের পশ্চিমাঞ্চলে একটি কারাগারে সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাত নেতৃত্বাধীন জোটের বিমান হামলায় অন্তত ৪০ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। রোববার ইয়েমেনের বিদ্রোহীগোষ্ঠী হুতির এক মুখপাত্রের বরাত দিয়ে গলফ নিউজ এ তথ্য জানিয়েছে।

হুতি পরিচালিত টেলিভিশন চ্যানেল আল-মাসিরাহকে ওই মুখপাত্র বলেন, সৌদি জোটের বিমান হামলার পর ওই কারাগারের ধ্বংসস্তূপ থেকে অন্তত ৪০টি মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ধামার কমিউনিটি কলেজকে কারাগার হিসেবে ব্যবহার করা হতো। এই কারাগারে ১৭০ জন যুদ্ধবন্দি ছিলেন।

ইয়েমেন বিদ্রোহীদের ছোড়া ৬টি ক্ষেপণাস্ত্র ঠেকাল সৌদি আরব

সৌদি আরব দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় জিজান নগরীতে ইয়েমেনভিত্তিক বিদ্রোহীদের ছোড়া ছয়টি ক্ষেপণাস্ত্র ঠেকিয়ে দিয়েছে। রিয়াদ নেতৃত্বাধীন সামরিক জোটের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে।

সৌদি প্রেস এজেন্সি এক আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ইরানের মদদপুষ্ট হুতি বিদ্রোহীরা জিজানে বেসামরিক নাগরিকদের লক্ষ্য করে এসব ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ে। তবে এতে ক্ষতির বা হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

ইয়েমেনের সামরিক বাহিনীর কুচকাওয়াজে হামলায় নিহত ৩০

ইয়েমেনের সামরিক বাহিনীর কুচকাওয়াজ চলাকালীন ইরান সমর্থিত হুতি বিদ্রোহীদের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় এক সামরিক কমান্ডারসহ অন্তত ৩০ জন নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার দেশটির বন্দরনগরী আদেনে সৌদি সমর্থিত সরকারের সামরিক বাহিনীকে লক্ষ্য করে ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন হামলা চালায় হুতিরা।

সংবাদ সংস্থা রয়টার্স জানায়, সংস্থাটির একজন প্রত্যক্ষদর্শী মাটিতে নয়টি মরদেহ পড়ে থাকতে দেখেছেন। সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের শরিক সংযুক্ত আরব আমিরাত সমর্থিত ইয়েমেনি বাহিনী হুতিদের সঙ্গে যুদ্ধ করে আসছে। নিহতদের মধ্যে একজন কমান্ডারও ছিলেন বলে সরকার সমর্থক সামরিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।

Pages