Beta

মানসিক স্বাস্থ্য

মনের খবরের প্রথম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী

১৯ ডিসেম্বর ২০১৫, ১৮:১৫ | আপডেট: ১৯ ডিসেম্বর ২০১৫, ১৮:৫৩

ফিচার ডেস্ক
অনলাইন পোর্টাল মনের খবরের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন। ছবি: মনের খবর

দেশের প্রথম মানসিক স্বাস্থ্যবিষয়ক অনলাইন পোর্টাল মনের খবর ডটকম দ্বিতীয় বর্ষে পা রেখেছে। আজ শনিবার দুপুর ১টায় মনের খবরের প্রথম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে রাজধানীর কাঁটাবনে চিংড়ি রেস্টুরেন্টে বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

মানসিক স্বাস্থ্যসেবার খবর দেশ ও বিদেশের সবার কাছে পৌঁছে দিতে স্বপ্নটা দেখেছিলেন মনের খবরের সম্পাদক ডা. সালাহউদ্দীন কাউসার বিপ্লব। একদল দক্ষ ও পরিশ্রমী কর্মীদের নিয়ে আজকের এই দিনেই যাত্রা শুরু করে মনের খবর ডট কম

অনুষ্ঠানে দেশের মানসিক স্বাস্থ্যসেবায় নিয়োজিত বিভিন্ন মেডিকেল কলেজের চিকিৎসক, মনোরোগ বিশেষজ্ঞ, বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিবর্গ, উন্নয়নকর্মী, স্বাস্থ্যকর্মী ও বিভিন্ন পেশার বিশিষ্টজনরা উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় মনের খবরের প্রতিষ্ঠা, পথচলা ও ভবিষ্যৎ চিন্তা নিয়ে কথা বলেন সম্পাদক ডা. সালাহউদ্দীন কাউসার বিপ্লব। তিনি বলেন, সারা দেশের মানসিক স্বাস্থ্যবিষয়ক প্রতিষ্ঠান, ব্যক্তিগত পর্যায়ে প্রদত্ত সেবা ও সেবাকেন্দ্রগুলোকে একটি সহজলভ্য নেটওয়ার্কের ভেতর নিয়ে আসতে চাই আমরা। একই সঙ্গে মানসিক স্বাস্থ্যের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয়ে স্বল্পমেয়াদি ও মধ্যম মেয়াদি ওয়ার্কশপ ও প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরু করতে চাই। যেমন : স্পোর্টস সাইকোলজিস্ট, যৌনস্বাস্থ্য, শিশু প্রতিপালন।

এ ছাড়া সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন উন্নয়ন সংগঠনের সঙ্গে অংশীদারত্ব অথবা সহযোগিতায় সচেতনতামূলক অনুষ্ঠান আয়োজন ও সংবাদ প্রকাশ করবে মনের খবর বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

পাশাপাশি বিভিন্ন দেশের মানসিক স্বাস্থ্যবিষয়ক তথ্য ও বিশেষ ব্যক্তিত্বের সাক্ষাৎকার প্রকাশসহ মনের খবরের ইংরেজি ভার্সন প্রকাশ করার আশা ব্যক্ত করেন তিনি। 

এ সময় প্রখ্যাত মনোচিকিৎসক এবং কথাসাহিত্যিক অধ্যাপক ডা. আনোয়ারা বেগম বলেন, ‘মনের খবর মানসিক স্বাস্থ্যসেবায় সাড়া ফেলে দিয়েছে। আশা করি মনের খবর সবার সহযোগিতার মাধ্যমে একটি মাইলস্টনে উন্নীত হবে।’

প্রখ্যাত মনোরোগ বিশেষজ্ঞ ও বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সাইকিয়াট্রিস্টস’-এর সভাপতি অধ্যাপক ডা. গোলাম রব্বানী বলেন, মনের খবর শুধু একটি পত্রিকা নয়, সামাজিক যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম এটি। মানসিক রোগে আক্রান্ত অনেকেই এর মাধ্যমে উপকৃত হচ্ছে এবং সচেতন হচ্ছে। 

এ ছাড়া এ সময় বিশিষ্ট চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. হেদায়েতুল ইসলাম, বিশিষ্ট অভিনেতা মামুনুর রশীদ, এম এ সোবহানসহ প্রখ্যাত ব্যক্তিরা বক্তব্য দেন।

Advertisement