Beta

রক্ত আমাশয় হলে করণীয়

১৭ জুলাই ২০১৮, ২০:০৩

ফিচার ডেস্ক

বর্ষায় পানি বাহিত রোগ বাড়ে। এই সময়ে ডায়রিয়া, রক্ত আমাশয় ইত্যাদির প্রকোপ দেখা যায়। এগুলো হলে করণীয় কী, এ বিষয়ে এনটিভির নিয়মিত আয়োজন স্বাস্থ্য প্রতিদিন অনুষ্ঠানের ৩১৪৩তম পর্বে কথা বলেছেন ডা. রিয়াজ মোবারক।  

ডা. রিয়াজ মোবারক বর্তমানে ঢাকা শিশু হাসপাতালের এইচ ডিইউ ও আইসোলেশন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান হিসেবে কর্মরত।

প্রশ্ন : এখন কি ডায়রিয়া, কলেরা- এই ধরনের রোগগুলো বাচ্চাদের ক্ষেত্রে হচ্ছে?

উত্তর : আমরা কলেরা খুব কমই দেখেছি। তবে ডায়রিয়া তো অবশ্যই দেখছি। ডায়রিয়ার সঙ্গে কিছু কিছু কলেরা হবে। ডায়রিয়া আসছে প্রচুর। বেশিরভাগ ডায়রিয়া হলো ভাইরাল ডায়রিয়া। কোনো কোনো ক্ষেত্রে ইনভেসিভ ডায়রিয়া হয়। যেগুলো হলো রক্ত আমাশয়। রক্ত আমাশয় অনেক কারণে হতে পারে।

যে অ্যান্টিবায়োটিক আমরা আগে ব্যবহার করতাম, সে অ্যান্টিবায়োটিক কিন্তু এখন কাজ করছে না। আর আমরা এখন অনেক সচেতন হয়ে গেছি। ডায়রিয়ার জন্য আমরা প্রোবায়োটিক ব্যবহার করছি। এটি এক ধরনের ব্যাক্টেরিয়া। তবে বন্ধুসুলভ ব্যাক্টেরিয়া। এটি আমাদের উপকার করে। এর অ্যান্টিবায়োটিকের মতো পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নেই।

প্রশ্ন : এ ধরনের সমস্যা দেখলে কী করণীয়?

উত্তর : এই ধরনের রক্ত আমাশয় হলে দ্রুত একটি চিকিৎসা মা-বাবারা আশা করেন। মা-বাবাকে যদি আমি বলি, আপনার বাচ্চার পায়খানাটা পরীক্ষা করতে দেন, কালচার করে তিনদিন পরে নিয়ে আসেন, এটি কিন্তু মা-বাবারা শুনতে রাজি নন। দ্বিতীয়ত এর একটি ঝুঁকিও থাকে। খারাপ ধরনের রক্ত আমাশয় যদি হয়, এটি অনেক সময় অন্যান্য অঙ্গে, মস্তিষ্ককে, হাড়কে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে। এটি থেকে মৃত্যুঝুঁকিও রয়েছে। এ কারণে আমাদের চিকিৎসা দিতে হয়।

চিকিৎসার একটি সমস্যা হলো আগে যেমন আমরা এক ধরনের অ্যান্টিবায়োটিক দিয়ে থাকতাম, এ রকম অনেক ওষুধ এখন ভালো কাজ করছে না।

মা, দাদি, নানির উদ্বেগের কথা চিন্তা করে আমি একটা অ্যান্টি বায়োটিক দিয়ে দেই। তবে বলে দেই যে পায়খানা কালচার করতে হবে।

তবে আরেকটি বিষয় হলো যে পায়খানা কালচারের জন্য আমরা কোনো ভালো ল্যাব পাচ্ছি না। আমরা বেশিরভাগ ক্ষেত্রে দেখি যে ল্যাবগুলো তেমন ভালো কাজ করছে না। সবার জন্য আইসিডিডিআরবিতে যাওয়া কিন্তু খুব সহজ নয়। আমাদের ল্যাবগুলো যদি আরেকটু যত্নশীল হয়, তাহলে আমাদের জন্য ভালো। বাইরের দেশে গিয়ে যখন চিকিৎসার কথা বলা হয়, তারা কিন্তু খারাপ বলেন না। তবে আমাদের রোগ নির্ণয়ের পদ্ধতিগুলোতে কিন্তু সমস্যা হয়।

আমরা যেহেতু সব দিকেই উন্নতি করছি, এই দিকে আমরা আরেকটু যত্নশীল হলেই কিন্তু অনেক এগোতে পারব।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement