Beta

প্রাণ ডেইরির খামারিদের ঋণ দেবে সোনালী ব্যাংক

১৬ আগস্ট ২০১৭, ১৮:৩৬

অনলাইন ডেস্ক
উন্নত জাতের গাভী পালন ও দুগ্ধজাত পণ্যের উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে প্রাণ ডেইরির চুক্তিবদ্ধ খামারিদের ঋণ দেবে সোনালী ব্যাংক লিমিটেড। আজ বুধবার রাজধানীর একটি রেস্তোরাঁয় এ বিষয়ে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। ছবি : বিজ্ঞপ্তি

উন্নতজাতের গাভি পালন ও দুগ্ধজাত পণ্যের উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে প্রাণ ডেইরির চুক্তিবদ্ধ খামারিদের ঋণ দেবে সোনালী ব্যাংক লিমিটেড। আজ বুধবার রাজধানীর একটি রেস্তোরাঁয় এ বিষয়ে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়।

প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের পরিচালক (করপোরেট ফাইন্যান্স) উজমা চৌধুরী ও সোনালী ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক রফিকুল ইসলাম এ স্মারক স্বাক্ষর করেন। প্রাণ-আরএফএল গ্রুপ থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তিনি বলেন, প্রাণের বিনিয়োগ ব্যবসা-বাণিজ্যের বিভিন্ন ক্ষেত্রে দিশারীর ভূমিকা পালন করছে। কৃষিক্ষেত্রে বিনিয়োগ করে নতুন নতুন পণ্য সৃষ্টি করা যায়, তার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত প্রাণ। প্রাণের চুক্তিবদ্ধ খামারিদের ঋণ প্রদানে সোনালী ব্যাংকের এই উদ্যোগের প্রশংসা করেন  তিনি।

প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের চেয়ারম্যান ও সিইও আহসান খান চৌধুরী বলেন, প্রাণের চুক্তিবদ্ধ খামারিদের গাভি ক্রয়, শেড স্থাপন, মিল্কিং মেশিন, চপার মেশিন, দুধ বহনের অ্যালুমিনিয়াম ক্যানসহ খামার ব্যবস্থাপনার আধুনিক যন্ত্রপাতি কেনার জন্য এ ঋণ দেওয়া হবে।

আহসান খান চৌধুরী আরো বলেন, নাটোরের গুরুদাসপুর, পাবনার চাটমোহর, সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর ও বাঘাবাড়ী এবং রংপুরে অবস্থিত প্রাণের পাঁচটি ডেইরি ‘হাব’-এর অধীনে ১১ হাজারের অধিক রেজিস্ট্রার্ড দুগ্ধ খামারি রয়েছেন। এসব খামারির কাছে প্রায় ৫৫ হাজার গবাদি পশু রয়েছে। প্রাণ ডেইরি এসব গবাদি পশুর লালন-পালন ব্যবস্থা, টিকা, চিকিৎসাসেবা, খামার স্থাপনবিষয়ক প্রশিক্ষণ, কৃত্রিম প্রজনন প্রভৃতি সেবা প্রদান করে থাকে।

সোনালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা  মো. ওবায়েদ উল্লাহ আল মাসুদ জানান, দেশের কৃষি, শিল্প অন্যান্য সম্ভাবনাময় খাতগুলোতে সোনালী ব্যাংক ঋণসহায়তা দিয়ে থাকে। দেশের দুগ্ধ শিল্পের উন্নয়নে সরকারি ও বেসরকারি যেসব প্রতিষ্ঠান কাজ করছে প্রাণ ডেইরি তাদের মধ্যে অন্যতম। এ ঋণ প্রদানের উদ্দেশ্য হচ্ছে দেশে দুগ্ধ শিল্পের বিকাশ ঘটিয়ে অপুষ্টি দূরীকরণসহ যুবক ও যুব মহিলাদের আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টি করা।

মো. ওবায়েদ উল্লাহ আরো বলেন, প্রাণ ডেইরির দেওয়া তালিকা অনুযায়ী তাদের চুক্তিবদ্ধ খামারিদের এ ঋণ দেওয়া হবে। খামারিদের জন্য জামানতবিহীন ঋণসীমা ৫০ হাজার টাকা থেকে দুই লাখ টাকা এবং জামানতযুক্ত ঋণসীমা তিন লাখ টাকা থেকে ১০ লাখ টাকা। ঋণ পরিশোধের সময়সীমা থাকবে তিন থেকে পাঁচ বছর বলেও তিনি জানান।

বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সিনিয়র সচিব ইউনুসুর রহমান, সোনালী ব্যাংকের পরিচালনা বোর্ডের চেয়ারম্যান আশরাফুল মকবুল, প্রাণের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইলিয়াছ মৃধাসহ উভয় প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement