Beta

জাহিদ হাসানের ‘বিশেষ বিজ্ঞপ্তি’

২০ মার্চ ২০১৫, ১৫:০৭ | আপডেট: ২০ মার্চ ২০১৫, ১৬:২৯

জাহিদ হাসান রাস্তা দিয়ে হেঁটে আসছেন। এমন সময় আল আমীনের আবদার, ‘ভাই, ১০টা টাকা দেন; ভাত খামু।’ এ সময় শোনা গেল পরিচালক মাসুদ সেজানের গলা, ‘কাট, কাট।’ উত্তরার একটি বাড়িতে শুরু হয়েছে নতুন ধারাবাহিক নাটকের কাজ। 

নাটকটি পরিচালনা করছেন মাসুদ সেজান। বিশেষ দিনের বিশেষ নাটকের পাশাপাশি ধারাবাহিক নাটকেও দর্শকের পছন্দের তালিকায় প্রথম দিকে আছেন জাহিদ হাসান। গতকাল বৃহস্পতিবার ১৯ মার্চ ‘বিশেষ বিজ্ঞপ্তি’ ধারাবাহিকের ওই শুটিংয়ের ফাঁকে এনটিভি অনলাইনের সঙ্গে কথা বলেন জাহিদ হাসান। 

প্রশ্ন : কবে থেকে এই ধারাবাহিক নাটকের কাজ শুরু করলেন?
উত্তর : ১৪ মার্চ থেকে শুটিং শুরু করেছি। টানা শুটিং করলাম। আজ রাতে শেষ হয়ে যাবে। নাটকে আমার অংশের কাজ পুরোটাই শেষ। অন্যান্য চরিত্রের কাজ আছে। আরো তিন দিন শুটিং চলবে, তবে আমাকে আর লাগবে না।

প্রশ্ন : ধারাবাহিকের গল্পটা কেমন? 
উত্তর : আমাদের সমাজের খারাপ মানুষদের নিয়েই নির্মিত হচ্ছে নাটকটি। বাসে যাতায়াতের পথে সহযাত্রীর দেওয়া খাবার খেতে আমরা ভয় পাই। আবার নিজের বাচ্চাকে বাসার দারোয়ান দিয়ে স্কুলে পাঠাতেও আমাদের ভয়। মৌ বাইরে শুটিং করছে, আমি কাজ করছি;  কিন্তু বাচ্চাদের কোথায় রাখব? কাউকে বিশ্বাস করতে পারছি না। রাস্তায় কয়েকজন দাঁড়িয়ে থাকতে দেখলেও আমরা ভয় পাই। সমাজে যে হারে সন্ত্রাস বাড়ছে, তাতেই এই বাস্তবতা তৈরি হচ্ছে। তবে এসব খারাপ কাজের সঙ্গে জড়িত খুব অল্প মানুষই। তাদের জন্যই আমরা বিশাল জনগোষ্ঠী আতঙ্কের মধ্যে থাকি। এই খারাপ ও ভালো মানুষ নিয়েই এ ধারাবাহিক নাটক ‘বিশেষ বিজ্ঞপ্তি’।

প্রশ্ন : এই নাটকে আপনি কতটা খারাপ মানুষ?
উত্তর : আমি আসলে কিছুটা খারাপ মানুষ, ভালোর পরিমাণই বেশি। কিন্তু এ নিয়ে আমার আক্ষেপ আছে, কারণ ভালো থেকে আমার লাভটা কী হলো? আমার বাড়ি নাই, গাড়ি নাই। মাঝেমধ্যে খারাপ হতে চেষ্টা করি, কিন্তু হয়ে ওঠে না। এমনই একটা চরিত্র করছি এই নাটকে।

প্রশ্ন : অনেকগুলো চ্যানেল, অনেক নাটক—দর্শক আলাদা কী পাবে এই ধারাবাহিকে?
উত্তর : এই নাটকের পরিচালক মাসুদ সেজান, সে নিজেই গল্প লেখে, চিত্রনাট্য তারই করা। যে কারণে সবকিছুতে এক ধরনের পূর্ণতা থাকে। আমাদের দুজনের বোঝাপড়া ভালো, যে কারণে অভিনয়টা ভালো হয়। মন থেকে কাজ করতে পারি সেজানের নাটকে।  

প্রশ্ন : নাটকটি কোথায় প্রচারিত হবে?
উত্তর : আমি যতদূর জানি কোনো টিভিতে এখনো কথা হয়নি। তবে কিছুদিনের মধ্যে কোনো চ্যানেলে প্রচার শুরু হবে। ১৩ পর্ব বানানো শেষ হলে কোনো একটি চ্যানেলের সঙ্গে কথা বলবে ধারাবাহিকের পরিচালক মাসুদ সেজান।
জাহিদ হাসান ছাড়াও এই নাটকে আরো অভিনয় করছেন বাঁধন, ডাক্তার এজাজ, শামীমা নাজনীন, তারিক স্বপন, জয়রাজ, চাঁদনী, আল আমীন, জুঁই, মিলন ভট্টাচার্য, নূর আলম নয়ন, সাজ্জাদ রেজা, মুকুল সিরাজ, আহসান কবির, মিথুনসহ আরো অনেকে।

Advertisement