Beta

কঙ্গোয় খনি ধসে ৪৩ অবৈধ শ্রমিকের মৃত্যু

২৯ জুন ২০১৯, ১১:১৯ | আপডেট: ২৯ জুন ২০১৯, ১১:২২

অনলাইন ডেস্ক

গণপ্রজাতন্ত্রী কঙ্গোর দক্ষিণাঞ্চলীয় একটি খনি ধসে অন্তত ৪৩ শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। মর্মান্তিক এই দুর্ঘটনায় এখনো ধ্বংসস্তূপের নিচে আটকে আছেন অনেকে।

কর্তৃপক্ষের বরাতে সংবাদমাধ্যম বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড জানায়, গত বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) কঙ্গোর দক্ষিণাঞ্চলীয় কোলওয়েজি এলাকার সেই খনি থেকে অবৈধভাবে কপার ও কোবাল্ট উত্তোলনের সময় এই দুর্ঘটনা ঘটে।

সুইজারল্যান্ড ভিত্তিক বিখ্যাত খনিজ সম্পদ উত্তোলনকারী প্রতিষ্ঠানের 'গ্লেনকোর' এক মুখপাত্র জানান, দুর্ঘটনার পর পরই তাঁদের কর্মীরা নিখোঁজদের সন্ধানে উদ্ধার কাজ শুরু করেন। যদিও খনির নিচে থাকা বিষাক্ত গ্যাস, স্থান ও আলো স্বল্পতার কারণে বেশিরভাগ শ্রমিকই দমবন্ধ হয়ে মারা যান। এখন পর্যন্ত ৪৩টি মরদেহ উদ্ধার হলেও জীবিত বাকিদের ফিরিয়ে আনতে ব্যাপক উদ্ধার তৎপরতা চালানো হচ্ছে।

কোলওয়েজি পুলিশের দাবি, বিপজ্জনক হওয়ায় খনিটি বন্ধ ছিল; যে কারণে স্থানীয়রা অবৈধভাবে সেখান থেকে কপার ও কোবাল্ট উত্তোলনের চেষ্টা করছিল। খনি ধসের প্রকৃত কারণ অনুসন্ধানে স্থানীয় প্রশাসন ইতিমধ্যে তদন্তে নেমেছে।

প্রাথমিক তদন্ত শেষে জানা যায়, বৃহস্পতিবার অবৈধভাবে খনির সম্পদ উত্তোলনের সময় আচমকাই প্রচণ্ড বিস্ফোরণে ভেঙ্গে পড়ে এর প্রবেশ মুখ। মূলত এতেই ভেতরে চাপা পড়েন প্রায় অর্ধ শতাধিক শ্রমিক।

Advertisement