Beta

ইউএনএইচসিআরের তথ্য

ভূমধ্যসাগরে জাহাজডুবিতে ১৭০ জনের প্রাণহানির আশঙ্কা

২০ জানুয়ারি ২০১৯, ১০:৩৫

বিবিসি

লিবিয়ার উপকূলে দুটি পৃথক জাহাজডুবির ঘটনায় অন্তত ১৭০ জনের প্রাণহানির আশঙ্কা করা হচ্ছে।

মরক্কো ও স্প্যানিশ কর্তৃপক্ষ পশ্চিম ভূমধ্যসাগরে হারিয়ে যাওয়া জাহাজ দুটি খুঁজে বের করার চেষ্টা চালাচ্ছে বলে জানায় ইতালীয় নৌবাহিনী।

তবে এ জাহাজডুবিতে কতজনের প্রাণহানি ঘটেছে, তা নিশ্চিত হতে পারেনি জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক সংস্থা (ইউএনএইচসিআর)।

জানা যায়, ২০১৮ সালেই ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিতে গিয়ে দুই হাজার ২০০ জনের বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন।

জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক হাইকমিশনার ফিলিপো গ্র্যান্ডি এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলেন, ‘ইউরোপের কাছেই ঘটে যাওয়া এ ঘটনায় আমরা চোখ বন্ধ করে রাখতে পারি না।’

ভূমধ্যসাগরীয় পশ্চিমাঞ্চলে আল-বারন সাগরে ৫৩ যাত্রী নিয়ে প্রথম নৌকাটি অদৃশ্য হয়ে যায়।

যাত্রীদের একজন ২৪ ঘণ্টা সমুদ্রে কাটানোর পর তাঁকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। মরক্কোতে তাঁর চিকিৎসা চলছে।

এর মধ্যে কয়েক দিন ধরে নিখোঁজ ওই নৌকার খোঁজ করতে গিয়ে ব্যর্থ হতে হয়।

এদিকে ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর মাইগ্রেশন (আইওএম) অনুযায়ী, ডিংহি নামের দ্বিতীয় জাহাজটি গতকাল শনিবার লিবিয়া ছেড়ে যায়।

মুখপাত্র ফ্ল্যাভিও ডি গিয়াকোমো বলেন, ওই জাহাজডুবিতে জীবিত বেঁচে ফিরে আসা যাত্রীদের তিনজন জানান, লিবিয়া ছেড়ে যাওয়ার সময় জাহাজটিতে ১২০ জন যাত্রী ছিল।

এ দুর্ঘটনায় বেঁচে যাওয়া তিনজন তীব্র হাইপোথার্মিয়ায় ভুগছেন। ভুক্তভোগী ওই তিনজনকে হেলিকপ্টার দিয়ে সমুদ্র থেকে টেনে তোলা হয়। লম্পিডিউস দ্বীপে তাঁদের চিকিৎসা চলছে।

আইওএম বলেছে, ২০১৯  সালের প্রথম ১৬ দিনে চার হাজার ২১৬ জন অভিবাসী সমুদ্র পাড়ি দিয়ে ইউরোপে আসার চেষ্টা করেছেন, যা কি না গত বছরের একই সময়ের মধ্যে দ্বিগুণ।

Advertisement