Beta

যে কীর্তি গড়ে ধোনিকেও ছাড়িয়ে গেলেন কোহলি

০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৮:০৬

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রত্যাশিতভাবেই জ্যামাইকা টেস্ট জিতে নিয়েছে ভারত। সাবিনা পার্কে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ২৫৭ রানে জিতে বিরাট কোহলির ভারত ২-০তে হোয়াইটওয়াশ করেছে।

এই জয়ের সুবাদে কোহলি হয়ে গেলেন ভারতের সর্বকালের সবচেয়ে সফল টেস্ট অধিনায়ক। আট বছর আগে এই মাঠেই কোহলির টেস্ট অভিষেক হয়েছিল। আর সেই মাঠেই ক্রিকেটের দীর্ঘতম ফরম্যাটে দেশের সফলতম অধিনায়কের মুকুট উঠল তাঁর মাথায়। পিছনে ফেলে দিয়েছেন মহেন্দ্র সিং ধোনিকে।

বিরাট কোহলির অধিনায়কত্বে ভারত ৪৮ টেস্ট খেলে ২৮টিতে জিতেছে। আর ধোনি ৬০টি টেস্ট ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়ে ভারতকে ২৭টি টেস্ট জিতিয়েছিলেন। এর পরই আছেন সৌরভ গাঙ্গুলি, তিনি ৪৯ ম্যাচে অধিনায়কত্ব করে ২১টি জয় এনে দেন। আর মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন ৪৭ ম্যাচের ১৪টিতে জিতিয়েছিলেন ভারতকে।

ভারত ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে গোটা সফরেই অপরাজিত থেকেছে। তিনটি টি-টোয়েন্টি, তিনটি ওয়ানডে ও দুটি টেস্টের সবকটিতেই জিতেছে ভারত। এর আগে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ২০১৭ সালে ভারত তিনটি টেস্ট, পাঁচটি ওয়ানডে ও একটি টি-টোয়েন্টি জিতেছিল।

তবে রানের হিসাবে ভারত বিদেশের মাটিতে সবচেয়ে বড় ব্যবধানে ম্যাচ জিতেছে। জ্যামাইকা টেস্টে কোহলিরা জিতেছেন ২৫৭ রানে।

ম্যাচে ভারতের ৪১৬ রানের জবাবে দ্বিতীয় দিন শেষে সাত উইকেটে ৮৭ রান করেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তৃতীয় দিন বাকি তিন উইকেটে আরো ৩০ রান যোগ করে ক্যারিবীয়রা। তারা ১১৭ রানে অলআউট হয়ে যায়। ভারতীয় পেসার জসপ্রিত বুমরাহ হ্যাটট্রিকসহ ২৭ রানে শিকার করেন ছয় উইকেট। ফলে ২৯৯ রানে পিছিয়ে থেকে ফলোঅনে পড়ে হোল্ডারের দল। কিন্তু ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ফলোঅন না করিয়ে ম্যাচের তৃতীয় ইনিংসে আবারও ব্যাট করতে নামে ভারত।

নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট হাতে নেমে ৫৭ রানে চার উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় ভারত। লোকেশ রাহুল ৬, মায়াঙ্ক আগারওয়াল ৪, অধিনায়ক বিরাট কোহলি (০) ও চেতেশ্বর পুজারা ২৭ রান করে আউট হন। টপঅর্ডার ব্যর্থ হলেও পঞ্চম উইকেটে দুর্দান্ত লড়াই করেন আজিঙ্কা রাহানে ও প্রথম ইনিংসে সেঞ্চুরি করা হনুমা বিহারি। অবিচ্ছিন্ন ১১১ রানের জুটি গড়েন তাঁরা। দিন শেষে চার উইকেটে ১৬৮ রানে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করে ভারত। তাই ওয়েস্ট ইন্ডিজের সামনে ৪৬৮ রানের বড় লক্ষ্য দাঁড়ায়। আটটি চার ও একটি ছক্কায় ১০৯ বলে রাহানে অপরাজিত ৬৪ ও বিহারি আটটি চারে ৭৬ বলে অপরাজিত ৫৩ রান করেন।

Advertisement