Beta

পবিত্র কাবাঘর ধোয়ামোছার কাজ সম্পন্ন

১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৫:৪৫

পবিত্র কাবাঘরের পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে। পবিত্র কাবার ভেতরের অংশ প্রত্যেক বছর দুবার ধোয়ামোছা করা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল সোমবার স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ৮টায় চলতি বছর প্রথমবারের মতো পবিত্র কাবাঘর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা করা হলো।

এ সময় সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজের পক্ষে মক্কা নগরীর গভর্নর প্রিন্স খালিদ আল ফয়সাল পবিত্র কাবাঘর পরিচ্ছন্নতার কাজে নেতৃত্ব দেন। কাবা শরিফের প্রধান ইমাম শায়খ আবদুর রহমান আস-সুদাইস, মক্কার ডেপুটি গভর্নর প্রিন্স বদর বিন সুলতান, স্পেশাল ইমার্জেন্সি ফোর্সের কমান্ডার ও হজ সিকিউরিটি ফোর্সের কমান্ডার, মন্ত্রিপরিষদের সদস্য, বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত ও গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের নিয়ে মক্কার গভর্নর এদিন কাবা চত্বরে আসেন।

আগে থেকেই কাবার গায়ে বিশেষ সিঁড়ি লাগানো ছিল। এরপর সবাই কাবাঘরের ভেতরে ঢোকেন। তাঁরা পবিত্র জমজমের পানির সঙ্গে গোলাপ, উন্নতমানের সুগন্ধি উদ ও কস্তুরিমিশ্রিত পানি দিয়ে পবিত্র কাবাঘরের ভেতরের অংশের ধোয়ামোছার কাজ করেন।

মক্কা নগরীর পবিত্র মসজিদে হারামে প্রবেশ করছেন শায়খ সুদাইসসহ অন্যরা। ছবি : সংগৃহীত

কাবাঘর ধোয়ার সময় দুই ঘণ্টা দরজা খোলা থাকে। এ সময় কাবার চারদিকে বিশেষ বাহিনীর সদস্যদের কয়েক স্তরের নিরাপত্তাবলয় তৈরি করা হয়।

পবিত্র কাবাঘর ধোয়ার পর বের হয়ে হাজরে আসওয়াদে (কালো পাথর) চুম্বন করেন মক্কার গভর্নর। এরপর কাবা তাওয়াফ করে মাকামে ইব্রাহিমে নামাজ আদায় করেন তিনি।

মহররম মাসে পবিত্র কাবাঘর ধোয়া হলেও এর আগেই আরাফার দিন (৯ জিলহজ) কাবার গিলাফ বদলানো হয়। আর কাবা ধোয়াকে সৌদি সরকার সবিশেষ গুরুত্ব দিয়ে থাকে।

কাবাঘর ধোয়ামোছার কাজ শেষে কাবার ভেতর থেকে বের হয়ে আসছেন মক্কার গভর্নরসহ অন্যারা। ছবি : সংগৃহীত

Advertisement