Beta

সেই সেলফিটা এখন স্মৃতি

২২ এপ্রিল ২০১৯, ১৩:৫৫

অনলাইন ডেস্ক
পরিবারের সঙ্গে সেলফি নিসাঙ্গার (ডানে প্রথম)। তা ফেসবুকে পোস্টও করেন তিনি। এর কিছুক্ষণ পরই বোমা বিস্ফোরিত হয়। ছবি : সংগৃহীত

পরিবারকে সঙ্গে নিয়ে কলম্বোর সাংরি-লা হোটেলে যান শান্তা মায়াদুনে। তিনি শ্রীলঙ্কার পরিচিত একজন শেফ। রান্না নিয়ে দেশটির টেলিভিশন চ্যানেলগুলোতে অনুষ্ঠান করেন। ওই সুবাদে তিনি বেশ জনপ্রিয়ও।

ইস্টার সানডে উপলক্ষে পরিবার নিয়ে সকালের নাস্তা করেন শান্তা। মেয়ে নিসাঙ্গা মায়াদুনে পরিবারকে নিয়ে একটি সেলফিও তোলেন। যা নিসাঙ্গা নিজের ফেসবুকে পোস্ট করেন। সেখানে দেখা যায় সবাই নাস্তা করছেন আর সবার মুখেই হাসি।

এর মধ্যে তরুণী নিসাঙ্গার হাসিটিই যেন ছিল সবচেয়ে বেশি প্রাণোচ্ছল।কে জানত এটাই নিসাঙ্গার শেষ হাসি।

রোববার সকাল ১১টা ১৭ মিনিটে নিসাঙ্গা ছবিটি ফেসবুকে পোস্ট করেন। সেখানে লেখা ছিল ‘ইস্টার ব্রেকফাস্ট উইথ ফ্যামিলি।’

এর পরই ওই হোটেলে ঘটে ভয়াবহ বিস্ফোরণ। শান্তা আর তাঁর মেয়ে নিসাঙ্গা ঘটনাস্থলেই মারা যান।

মা শান্তা মায়াদুনের সঙ্গে নিসাঙ্গা মায়াদুনে। ছবি : সংগৃহীত

সংবাদ মাধ্যম সিএনএন ওই ছবিটি প্রকাশ করে। নিসাঙ্গার ওই পারিবারিক সেলফিটি দ্রুত ভাইরাল হয়ে যায়।   

বিভিন্ন রান্নায় বেশ পারদর্শী ছিলেন শান্তা মায়াদুনে। অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাজ্য, সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড এবং ভারতে রান্না বিষয়ে পড়াশোনা করেছেন তিনি। ওই বিষয়ে তাঁর দুটি বইও আছে। সবচেয়ে বড় কথা শ্রীলঙ্কায় তাঁর টিভি অনুষ্ঠান বেশ জনপ্রিয়।

নিসাঙ্গা লন্ডন ইউনিভার্সিটিতে পড়াশোনা করতেন বলে জানা যায়।

গতকাল রোববার ছিল ইস্টার সানডে। বহু খ্রিস্ট ধর্মাবলম্বী গির্জায় জড়ো হয় সকালেই। ওই সময়ই শ্রীলঙ্কার একাধিক গির্জায় বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। শুধু তাই নয় সাংরি-লা হোটেলের  মতো একাধিক হোটেলেও বোমা বিস্ফোরিত হয়। এখন পর্যন্ত ২৯০ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

Advertisement