Beta

ফ্রান্সের উদ্দেশে সৌদি ছেড়েছেন হারিরি

১৮ নভেম্বর ২০১৭, ১০:০৫ | আপডেট: ১৮ নভেম্বর ২০১৭, ১১:৫০

অনলাইন ডেস্ক
লেবাননের রাজধানী বৈরুতের রাস্তায় প্রধানমন্ত্রী সাদ আল-হারিরির একটি ছবির পাশে কয়েকজন পথচারী ও যাত্রী। ছবি : রয়টার্স

পদত্যাগের আকস্মিক ঘোষণার পরিপ্রেক্ষিতে সৃষ্ট সংকটের মধ্যেই ইউরোপীয় মিত্র রাষ্ট্র ফ্রান্সের উদ্দেশে সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদ ছেড়েছেন লেবাননের প্রধানমন্ত্রী সাদ আল-হারিরি।

ফ্রান্সগামী বিমানে ওঠার আগে স্থানীয় সময় শুক্রবার দিবাগত রাতে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম টুইটারে দেওয়া এক বার্তায় বিষয়টি জানান লেবাননে ক্ষমতাসীন জোটের প্রধান দল ফিউচার পার্টির এই নেতা।

সৌদি সফরে গিয়ে গত ৪ নভেম্বর হঠাৎ পদত্যাগের ঘোষণা দেন লেবাননে আততায়ীদের হাতে নিহত প্রধানমন্ত্রী রফিক হারিরির ছেলে সাদ হারিরি। তাঁর পদত্যাগ গ্রহণ করেননি দেশটির প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন।

পদত্যাগের এই ঘটনাকে সৌদির চাপ আখ্যা দিয়ে প্রত্যাখ্যান করেছে ক্ষমতাসীন ও বিরোধী রাজনৈতিক দল, সুশীল সমাজসহ বিভিন্ন পক্ষ।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয়, সৌদি আরবে হারিরির পদত্যাগের পর লেবাননে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা নিয়ে শঙ্কা দিয়েছে। এমন বাস্তবতায় সপরিবারে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাকরোঁর সঙ্গে হারিরির দেখা করার মধ্য দিয়ে সংকটের জট খুলতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

‘আমি বিমানবন্দরের পথে’, টুইটে বলেন হারিরি।

লেবাননে নেতৃত্বে থাকা ফিউচার মুভমেন্টের সদস্য ও আইনপ্রণেতা ওকাব সাকর বলেন, ফ্রান্স সফর শেষে বৈরুতে ফেরার আগে ‘আরবে সংক্ষিপ্ত সফর’ করতে পারেন হারিরি।

সুইডেন সফররত ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘আগামী কয়েক দিন বা কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই দেশে ফিরতে চান’ হারিরি।

লেবাননে আকস্মিক সংকট মুখোমুখি করে দিয়েছে আঞ্চলিক দুই বৈরী রাষ্ট্র ইরান ও সৌদি আরবকে। লেবাননে শিয়া মিলিশিয়াদের সংগঠন ও ক্ষমতাসীন জোটের শরিক হিজবুল্লাহকে সমর্থন দিয়ে ইরান আঞ্চলিক অস্থিতিশীলতা তৈরি করছে বলে অভিযোগ করেছে সৌদি আরব। অন্যদিকে হারিরিকে জোরপূর্বক পদত্যাগ করতে বলে এবং তাঁকে আটকে রেখে সৌদি আরব লেবাননকে অস্থিতিশীল করতে চাচ্ছে বলে মন্তব্য করেছে ইরান ও হিজবুল্লাহ। দুটি পক্ষই হারিরিকে দ্রুত দেশে ফেরার আহ্বান জানিয়েছে।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement