Beta

কিউবার বিপ্লবী নেতা ফার্নান্দেজ আর নেই

০৮ জানুয়ারি ২০১৭, ১৮:৪৯ | আপডেট: ০৮ জানুয়ারি ২০১৭, ১৮:৫৭

বাসস
কিউবা বিপ্লবের নেতা কার্লোস ফার্নান্দেজ গন্ডিন। ছবি : দ্য গার্ডিয়ান

একে একে যেন তব নিভেছে দেউটি! কিউবার বিপ্লবের জনক ফিদেল কাস্ত্রোর মৃত্যুর পরের মাসেই চলে গেলেন বিপ্লবের আরেক নেতা কার্লোস ফার্নান্দেজ গডিন। দেশটির স্থানীয় সময় শনিবার বিকেলে তিনি মারা যান।

মৃত্যুর সময়ে কার্লোস ফার্নান্দেজের বয়স হয়েছিল ৭৮ বছর। মৃত্যুর আগের দিন পর্যন্ত তিনি কিউবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন।

১৯৩৮ সালে পূর্বাঞ্চলের সান্টিয়াগো নগরীতে তাঁর জন্ম। তিনি কিউবার সামরিক বাহিনীর কর্মকর্তাও ছিলেন। গডিন অল্প বয়সেই কিউবার বিপ্লবের জনক ফিদেল কাস্ত্রোর ২৬ জুলাই মুভমেন্টে অংশ নিতে শুরু করেন।

এরপর তিনি বর্তমান প্রেসিডেন্ট রাউল কাস্ত্রোর নেতৃত্বাধীন সেকেন্ড ফ্রন্টের ‘রেবেল আর্মি’তে যোগ দেন।

১৯৫৯ সালে বিপ্লব জয়ী হওয়ার পর তিনি রেভ্যুলিউশনারি আর্মড ফোর্স ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন।

১৯৬১ সালে তিনি বে অব পিগস হামলার বিরুদ্ধে যুদ্ধে যোগ দেন। কিউবায় যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত সামরিক হামলার নাম ছিল বে অব পিগস।

গডিন অ্যাঙ্গোলার স্বাধীনতাযুদ্ধে অবদান রাখেন। তিনি পরবর্তীকালে ডিভিশনাল জেনারেল র‌্যাংক ব্যাজ পান এবং ১৯৯৩ সাল পর্যন্ত পার্লামেন্টের ডেপুটি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

বিপ্লবে অসামান্য অবদান ও নেতৃবৃন্দের প্রতি বিশ্বস্ত থাকার জন্য সাবেক সামরিক এ কর্মকর্তা ‘হিরো অব দ্য রিপাবলিক অব কিউবা’ পদকে ভূষিত হন।

এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ফার্নান্দেজের ইচ্ছা অনুযায়ী তাঁর লাশ দাহ করা হবে এবং ভস্ম সেকেন্ড ইস্টার্ন ফ্রন্ট ‘ফ্রাংক পাইসের’ সমাধিতে সমাহিত করা হবে। এখানে তাঁকে সামরিক সম্মান জানানো হবে।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement