Beta

‘বেনাপোল এক্সপ্রেস’ ট্রেনের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

১৭ জুলাই ২০১৯, ১৯:৩৫

মহসিন মিলন, বেনাপোল
বুধবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে হুইসেল বাজিয়ে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বেনাপোল এক্সপ্রেস উদ্বোধন করেন। ছবি : ফোকাস বাংলা

রাজধানী ঢাকা এবং দেশের বৃহত্তম স্থলবন্দর বেনাপোলের মধ্যে চলাচলের জন্য নতুন আন্তনগর ট্রেন ‘বেনাপোল এক্সপ্রেসের’ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বুধবার গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে পতাকা নেড়ে হুইসেল বাজিয়ে নতুন এ ট্রেনটির উদ্বোধন করেন তিনি।

৮৯৬টি আসন এবং ১২টি কোচ সমৃদ্ধ বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনটি যাত্রাপথে যশোর, পাবনার ঈশ্বরদী ও ঢাকা বিমানবন্দর স্টেশনে বিরতি নেবে।

ট্রেনটি প্রতিদিন বেলা সাড়ে ১১টায় বেনাপোল থেকে ছেড়ে এসে সন্ধ্যা ৭টা নাগাদ ঢাকায় পৌঁছাবে এবং রাত সাড়ে ১২টায় ঢাকা থেকে ছেড়ে সকাল ৮টা নাগাদ বেনাপোল গিয়ে পৌঁছাবে। বর্তমানে যশোর থেকে ঢাকায় যে ট্রেনসেবা চালু রয়েছে, সেটি ১৪টি স্থানে বিরতি নেয়। এতে যশোর থেকে ঢাকায় পৌঁছাতে ১০ থেকে ১১ ঘণ্টা সময় লেগে যায়। সেখানে বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনটি সময় নেবে সাত ঘণ্টা। আর যশোর থেকে এক ঘণ্টার মধ্যে বেনাপোল পৌঁছে যাবে।

ট্রেনের টিকেট শোভন চেয়ারের জন্য ৫৩৪ টাকা, স্নিগ্ধার জন্য এক হাজার ১৩ টাকা, শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত আসনের জন্য এক হাজার ২১৩ টাকা এবং শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কেবিনের জন্য এক হাজার ৮৬৯ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

কর্তৃপক্ষ জানায়, বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনের সব কোচ ইন্দোনেশিয়া থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে এবং জনগণ আসন্ন ঈদুল আজহার সময় আধুনিক এই ট্রেনে ভ্রমণ করতে পারবে।

একই অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী ঢাকা-রাজশাহী রুটে চলাচলকারী আন্তনগর বিরতিহীন ট্রেন ‘বনলতা এক্সপ্রেসের’ যাত্রাপথ চাঁপাইনবাবগঞ্জ পর্যন্ত বর্ধিত করেন। গত ২৫ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী এ ট্রেনের উদ্বোধন করেন।

এ সময় গণভবনে রেলপথমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন ও এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) এদেশীয় পরিচালক মনমোহন প্রকাশ উপস্থিত ছিলেন।

অন্যদিকে বেনাপোলে ভিডিও কনফারেন্সে অংশ নেন বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক মো. শামসুজ্জামান, সংসদ সদস্য শেখ আফিল উদ্দীন ও মেজর জেনারেল মো. নাসির উদ্দীন।

Advertisement