Beta

‘সবাই সাবধানে থাকবেন, সুস্থ থাকবেন’

০৪ মে ২০১৯, ১২:৩৩

অতিপ্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’ নিয়ে চিন্তিত পুরো দেশবাসী। বিভিন্ন অঙ্গনের শিল্পীরাও শঙ্কিত। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে ‘ফণী’ সম্পর্কে  সতর্ক বার্তা লিখে  অনেকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন।

অভিনয়শিল্পী জয়া আহসান বলেছেন, ‘সবাই নিরাপদে থাকুন।’  ‘সবাই সাবধানে থাকবেন, সুস্থ থাকবেন’, বলেছেন জাকিয়া বারী মম।

চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি  বলেন, ‘আল্লাহ সবাইকে জান-মালসহ রক্ষা করবে। ইনশা আল্লাহ।’ মডেল ও উপস্থাপক আমব্রিন বলেন, ‘মহান মালিক দয়াময় আল্লাহ সবাইকে হেফাজত করুন।’

অভিনেত্রী শাহনাজ খুশি বলেন, ‘সবার জন্য খুব অস্থির লাগছে। ঘর থেকে দূরে শুটিংয়ে আছি। ভাইবোন, বন্ধুজন, সবাই সাবধানে থাকুন, প্রিয়জনের সাথে থাকুন। মা বাবার খোঁজ নিন।’

অন্যদিকে, মডেল ও অভিনেত্রী নুসরাত জাহান খান নীপা বলেন, ‘দরকারি কাজে ডেমরা আসছি। প্রচণ্ড বাতাস আর বৃষ্টি হচ্ছে। বাতাসের তীব্রতায় দাঁড়িয়ে থাকা যাচ্ছিল না প্রায়। আমি ভাবতেছিলাম এখানে এই অবস্থা উপকূলের মানুষগুলোর তাহলে না জানি কী অবস্থা হচ্ছে। আল্লাহ মাফ করো। এই যে এই অবস্থায় যারা ফেসবুকে ঘূর্ণিঝড় নিয়ে ফাইজলামি, ফান পোস্ট দিচ্ছে, ট্রল করতেছে, মেমে বানাচ্ছে— এরা কারা ভাই? কই থেকে আসছে? এরা মানুষ নাকি অন্যকিছু? এত সিরিয়াস ইস্যুতে ফাইজলামি করার কী আছে? বিনোদনের কি অভাব পড়ল দেশে?’

গতকাল শুক্রবার সকাল থেকে ভারতের ওডিশা রাজ্যে ‘ফণী’র তাণ্ডব শুরু হয়। সেখানকার পুরি উপকূলে প্রায় ২০০ কিলোমিটার বেগে আছড়ে পড়ে। সেখানে আটজনের প্রাণহানির খবর পাওয়া গেছে।

এরপর সেটি পশ্চিমবঙ্গে আঘাত আনে। মধ্যরাতের পর ভারতের এই রাজ্যে প্রবেশ করে ‘ফণী’। ৯০ কিলোমিটার বেগে খড়গপুরে এটি আঘাত হানে। পরে আরামবাগ, কাটোয়া, নদীয়া হয়ে গেছে মুর্শিদাবাদে। তারপর সেখান থেকে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে বলে আলিপুর আবহাওয়া অধিদপ্তরের বরাত দিয়ে জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম।

আবহাওয়াবিদরা বলেছেন, ঘূর্ণিঝড়টি ভারতের স্থলভাগ দিয়ে প্রবেশ করায় তা দুর্বল হয়ে যাচ্ছে। এতে ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা কম। সংশ্লিষ্ট এলাকার সাগর ও নদী উত্তাল রয়েছে।

এদিকে, ‘ফণী’রতেজ কিছুটা কমে আজ শনিবার সকাল ৬টায় খুলনাসহ দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে আঘাত হেনেছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। এ কারণে এসব এলাকায় ঝড়ো হাওয়া ও বৃষ্টিপাত হচ্ছে। ঝড়টি ক্রমশ দুর্বল হয়ে উত্তর, উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর হচ্ছে।

Advertisement