Beta

সরকার মানুষের অশ্রুর কোনো মূল্য দেয় না : মান্না

১৫ এপ্রিল ২০১৯, ২০:০৩

নিজস্ব প্রতিবেদক
জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে কথা বলেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতা মাহমুদুর রহমান মান্না। এনটিভির পুরোনো ছবি

মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি প্রসঙ্গে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতা মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, ‘যারা ক্ষমতায় আছে, তাদের কাছে আবেদন নিবেদন করে কোনো কাজ হবে না। ওরা মানুষের অশ্রুর কোনো মূল্য দেয় না।’

আজ সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবে ‘আদর্শ নাগরিক আন্দোলন’-এর তৃর্তীয় বর্ষপূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না।

মান্না বলেন, ‘নুসরাতকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যাকারী অধ্যক্ষের এটা যদি প্রথম কাজ হতো তাহলে একটা কথা ছিল। কিন্তু এর আগে ওই অধ্যক্ষ এক ছাত্রীকে নির্যাতন করেছে। কিন্তু এই ক্ষমতাধররা, যারা ক্ষমতায় আছে তারা সেটাকে ধামাচাপা দিয়েছে।’

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, ‘যারা মানুষের অধিকার রক্ষা করতে পারে না, মানুষের সুষ্ঠু বিচার করতে পারে না; তারা যাই করুক, তারা আমাদের সরকার নয়। তারা নির্বাচিত নয় । তারা ডাকাতি করে ক্ষমতায় এসেছে। তাদের মানব না, তাদের বিরুদ্ধে লড়াই করাই আমাদের কাজ।’

দেশের মানুষের মধ্যে হতাশা সৃষ্টি হয়েছে মন্তব্য করে মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘তারা কখনো ভাবেনি ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় নির্বাচনে ভোট ডাকাতি হবে। ভোট ডাকাতি না হলে, জনগণ যদি ভোট দিতে পারত তাহলে জনগণ দেখিয়ে দিত। সারা বিশ্ব অবাক হতো যে ১০ বছর আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় ছিল, তারপরও তারা ১০টি সিট পেত না। কিন্তু তারা ঐক্যফ্রন্টকে আটটি সিট দিয়ে বাকিগুলো ডাকাতি করে নিয়েছে। ওরা ডাকাত, চোর। এ ভোট ডাকাতি কতদিন চলবে? যত দিন না চোরদের হাত ভাঙতে পারবেন। ডাকাতদের টুটি চেপে ধরতে না পারবেন তত দিন পর্যন্ত তারা থাকবে।’

বিএনপির উদ্দেশে মান্না বলেন, ‘আওয়ামী লীগের ক্ষমতায় তিন মাস অতিবাহিত হয়ে গেল একটা আন্দোলন করতে পারলেন না। ৩০ ডিসেম্বর ভোট ডাকাতি নির্বাচনের প্রতিবাদে আন্দোলন করতে পারতেন। করতে পারলেন না। এটা কার দোষ? আমার দোষ, আপনার দোষ। তাই বলি সবাই আবার ভাবেন। এ রকম একটি অপ্রিয় সরকার ১০ বছর ধরে ক্ষমতায় থাকতে পারে না।’

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি মুহাম্মদ মাহমুদুল হাসানের সভাপতিত্বে মো. আল আমিন এবং খন্দকার মো. মহিউদ্দিন মাহির সঞ্চালনায় সভায় অন্যদের মধ্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড খন্দকার মোশাররফ হোসেন, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Advertisement