Beta

বানিয়াচংয়ে ব্যালট ছিনতাই, পুলিশ-আনসারের ওপর হামলা

১০ মার্চ ২০১৯, ২০:৩৩ | আপডেট: ১০ মার্চ ২০১৯, ২০:৫২

হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলার শাহপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে আজ রোববার জাল ভোট দেয় দুর্বৃত্তরা। পরে ওই কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়। ছবি : এনটিভি

হবিগঞ্জের বানিয়াচং ও আজমিরীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে আজ রোববার দুটি কেন্দ্রে ব্যালট পেপার ছিনতাই ও জাল ভোট দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ কারণে ওই দুটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে।

বানিয়াচংয়ের শাহপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে জাল ভোট দিতে বাধা দিলে হামলা চালায় দুর্বৃত্তরা। এতে কর্তব্যরত প্রিজাইডিং অফিসার প্রভাষক জাহির আলম, পুলিশের রেঞ্জ রিজার্ভ ফোর্সের (আরআরএফ)   কনস্টেবল জামাল উদ্দিন, আনসার সদস্য আবদুল মালেকসহ ছয়জন আহত হন। জামালের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাঁকে হেলিকপ্টারে করে ঢাকায় পাঠিয়ে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরো সায়েন্সেস ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল থেকে শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ শুরু হলেও বেলা ১১টার দিকে বানিয়াচং উপজেলার শাহপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ইকরাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে হামলা চালায় দুর্বৃত্তরা। তাৎক্ষণিকভাবে ইকরাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। অপরদিকে শাহপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দুর্বৃত্তরা ব্যালট পেপার ছিনতাই করে ভোটকেন্দ্রের ভেতরে ঢুকে ইচ্ছামতো সিল মেরে জাল ভোট দিতে থাকে। এতে বাধা দিলে তাদের হামলায় কর্তব্যরত প্রিজাইডিং অফিসার প্রভাষক জাহির আলম, পুলিশের রেঞ্জ রিজার্ভ ফোর্সের (আরআরএফ) কনস্টেবল জামাল উদ্দিন, আনসার সদস্য আবদুল মালেকসহ ছয়জন আহত হন। হামলায় কনস্টেবল জামাল মাথায় আঘাত পান। আনসার সদস্য মালেক হাতে ব্যথা পেয়ে মাটিয়ে লুটিয়ে পড়েন। অন্যদিকে জামাল অনবরত বমি করতে থাকেন। সঙ্গে সঙ্গে আহতদের হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে নেওয়া হয়।

হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলার শাহপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে আজ রোববার জাল ভোট দিতে বাধা দিলে হামলায় আহত হন আনসার সদস্য আবদুল মালেক। ছবি : এনটিভি

বিষয়টি নিশ্চিত করে বানিয়াচং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো.   মামুন খন্দকার জানান, ঘটনার পরপর শাহপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে। এ ছাড়া উপজেলার সব কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ হয়েছে।

বানিয়াচং উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আবুল কাশেম চৌধুরী, বিদ্রোহী প্রার্থী ইকবাল হোসেন খান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী উপজেলা বিএনপির বহিষ্কৃত সভাপতি মঞ্জুর উদ্দিন শাহীন।

কোন প্রার্থীর লোক হামলা চালিয়েছে- আহত আনসার সদস্য আবদুল মালেকের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কোন প্রার্থীর লোক হামলা চালিয়েছে তিনি জানেন না। হামলার পর তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়ায় হামলাকারীদের দেখতে পারেননি।

হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলার শাহপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে আজ রোববার জাল ভোট দিতে বাধা দিলে হামলায় আহত হন পুলিশ কনস্টেবল জামাল উদ্দিন। পরে তাঁকে হেলিকপ্টারে করে ঢাকায় পাঠানো হয়। ছবি : এনটিভি

পুলিশের সিলেট রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি ও হবিগঞ্জের সাবেক পুলিশ সুপার জয়দেব ভদ্র জানান, শাহপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ব্যালট পেপারে জোর করে সিল মারা নিয়ে আওয়ামী লীগ মনোনীত ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গিয়ে মাথায় আঘাত পান কনস্টেবল জামাল উদ্দিন। তাঁর অবস্থা খুব খারাপ ছিল। হামলার পর তিনি অনবরত বমি করছিলেন। বিষয়টি নির্বাচন কমিশনে জানালে তারা হেলিকপ্টারে করে ঢাকায় এনে চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে বলে। বিকেল ৩টার দিকে হবিগঞ্জ আধুনিক স্টেডিয়ামে হেলিকপ্টার এলে জামালকে ঢাকায় পাঠানো হয়।

এ সময় জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্লাহ উপস্থিত থেকে কনস্টেবল জামালকে হেলিক্প্টারে ওঠান।

অপরদিকে আজমিরীগঞ্জের ইউএনও নাঈমা খন্দকার জানান, আজমিরীগঞ্জ উপজেলার পশ্চিমবাগ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ব্যালট পেপার ও সিল ছিনতাই করে নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। তাই এ কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে।

হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলার শাহপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে আজ রোববার জাল ভোট দিতে বাধা দিলে হামলায় আহত হন পুলিশ কনস্টেবল জামাল উদ্দিন। পরে তাঁকে হেলিকপ্টারে করে ঢাকায় পাঠানো হয়। ছবি : স্টার মেইল

Advertisement