Beta

আরো এক ইউপিডিএফ নেতাকে গুলি করে হত্যা

২২ এপ্রিল ২০১৮, ১৫:২১

খাগড়াছড়ি জেলার পানছড়ি উপজেলার মরাটিলা এলাকায় ইউপিডিএফ ও জনসংহতি সমিতির (এম এন লারমা) মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এ সময় সুনীল বিকাশ ত্রিপুরা (৪০) নামের এক ইউপিডিএফ নেতা নিহত হয়েছেন।

আজ রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

সুনীল বিকাশ ত্রিপুরা ইউপিডিএফের মাটিরাঙ্গা ও গুইমারা অঞ্চলের সংগঠক ছিলেন। এ ঘটনায়  অনন্ত ত্রিপুরাসহ (২৯) আরো একজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

পানছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান দুই পক্ষের মধ্যে গোলাগুলি হয়েছে বলে দাবি করলেও ইউপিডিএফ ও এম এন লারমা, দুই পক্ষই ভিন্ন কথা বলছে। 

ইউপিডিএফের জেলা সংগঠক মাইকেল চাকমা দাবি করেন, মরাটিলা এলাকার একটি দোকানে বসে সুনীল ত্রিপুরা ও আরো কয়েকজন পানছড়ি বাজারে যাওয়ার জন্য অপেক্ষা করছিলেন। এ সময় দুটি সিএনজিতে করে ১০/১২ জনের একটি সশস্ত্র দল এসে ব্রাশফায়ার করে পালিয়ে যায়। তিনি ঘটনার জন্য জনসংহতি সমিতি (এম এন লারমা) পক্ষকে দায়ী করেন।

অন্যদিকে, জনসংহতি সমিতি (এম এন লারমা) গ্রুপের জেলা তথ্য ও প্রচার সম্পাদক সুধাকর ত্রিপুরা হত্যাকাণ্ডে তাদের জড়িত থাকার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। এটি ইউপিডিএফের অভ্যন্তরীণ বিরোধের জেরেও হতে পারে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

ওসি মিজানুর রহমান গুলিবিদ্ধ একজনকে উদ্ধারের কথা স্বীকার করলেও নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেননি।

Advertisement