Beta

৫ কোটি টাকা আত্মসাৎ, ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা গ্রেপ্তার

১৭ জানুয়ারি ২০১৮, ২২:৩৯

পাঁচ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে পিরোজপুর ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা মো. সেতাফুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করেছে দুদক। ছবি : এনটিভি

পাঁচ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে পিরোজপুর ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা মো. সেতাফুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। আজ বুধবার রাতে পিরোজপুর জেলা সার্কিট হাউজের সামনে থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়।

কিশোরগঞ্জে ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তার দায়িত্বে থাকার সময় ভুয়া এলএ কেসের মাধ্যমে পাঁচ কোটি টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগের মামলায় দুদক সেতাফুলকে গ্রেপ্তার করে।

সেতাফুল ইসলামের বাড়ি ঢাকার ডেমরার পূর্ব ডগাইর এলাকায়। গত ১৩ জানুয়ারি তিনি পিরোজপুরের ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা হিসেবে যোগ দেন।

দুদক সূত্রে জানা যায়, কিশোরগঞ্জ জেলার মিঠামইন উপজেলায় নতুন সেনানিবাস স্থাপন, পানি উন্নয়ন বোর্ড, সড়ক ও জনপথ বিভাগের বিভিন্ন প্রকল্পের জমি অধিগ্রহণের জন্য প্রায় ৫০০ কোটি টাকা বরাদ্দ আসে। ২০১৭ সালের ৫ ডিসেম্বর জেলা হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা স্বাক্ষরিত পাঁচ কোটি টাকার একটি চেক ৬ ডিসেম্বর ভূমি অধিগ্রহণ শাখার কর্মচারীদের বেতন-ভাতা শিরোনামে চলতি হিসাবে জমা হয়। ওই দিনই একটি চেকের মাধ্যমে দুই কোটি টাকা এবং ৭ ডিসেম্বর একটি চেকের মাধ্যমে দুই কোটি ৯৪ লাখ টাকা মো. সেতাফুল ইসলাম উত্তোলন করেন। এ ছাড়া আরো ছয় লাখ টাকা তপন ইন্ডাস্ট্রিজের নামে একটি হিসাবে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করেন তিনি।

এ ঘটনায় কিশোরগঞ্জ মডেল থানায় একটি মামলায় সেতাফুল ইসলামকে আজ পিরোজপুর জেলা সার্কিট হাউজের সামনে থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তাঁকে পিরোজপুর সদর থানায় সোপর্দ করা হয়।

বরিশালে দুদকের সমন্বিত কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. সিফাত উদ্দিন বলেন, মো. সেতাফুল ইসলাম, উনি হচ্ছেন এখানকার ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা। সিনিয়র অ্যাসিসটেন্ট সেক্রেটারি। ২৪তম বিসিএস দিয়ে প্রশাসনে যোগদান করেছিলেন। উনি ১৩ তারিখে এখানে (পিরোজপুর) যোগদান করেছিলেন।’

সেতাফুল ইসলামকে কাল বৃহস্পতিবার আদালতের মাধ্যমে কিশোরগঞ্জ পাঠানো হবে।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement