Beta

পুকুরে বিদ্যুতায়িত ২ শিশু, বাঁচাতে গিয়ে মা-ছেলেরও মৃত্যু

১৪ মে ২০১৭, ২২:০৬

বিদ্যুতায়িত হয়ে নিহত চারজনের মধ্যে দুজন ভোলা সদর হাসপাতালে। ছবি : এনটিভি

ভোলার দৌলতখান উপজেলায় পুকুরে গোসল করতে গিয়ে বিদ্যুতায়িত হয়ে মা ও ছেলেসহ চারজন নিহত হয়েছে।

আজ রোববার বিকেল ৪টায় দৌলতখান উপজেলার উত্তর জয়নগর গ্রামের মুন্সি ব্যাপারী বাড়ির একটি পুকুরে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় লোকজন জানায়, বিকেলে গ্রামের শাজাহানের ছেলে কোরআনে হাফেজ রহমত উল্ল্যাহ (১১) এবং আরেকজনের মেয়ে সুইটি (১৩) মুন্সি ব্যাপারী বাড়ির ওই পুকুরে গোসল করতে নামলে তারা বিদ্যুতায়িত হয়। এ সময় তাদের চিৎকার শুনে বাঁচাতে গিয়ে সুফিয়া বেগম (৩৫) ও তাঁর ছেলে ফয়েজ (১৫) বিদ্যুতায়িত হয়ে মারা যান। এ ঘটনার পর স্থানীয় লোকজন তাদের দ্রুত উদ্ধার করে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ভোলা সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় নিহতদের গ্রামে শোকের ছায়া নেমে আসে।

নিহত ফয়েজের ভাবি নাজমা বেগম অভিযোগ করেন, ওই পুকুরে পল্লী বিদ্যুতের তার ছিড়ে পড়লেও তা কেউ খেয়াল করেনি। এ অবস্থায় দুই শিশু গোসল করতে নামলে বিদ্যুতায়িত হয়। তাদের উদ্ধার করতে গিয়ে মারা যান দুজন।

নিহত রহমত উল্ল্যাহর চাচাতো ভাই মো. খোকন জানান, এত বড় ঘটনার পরও পল্লী বিদ্যুতের কেউ দেখতে আসেনি। তারা খোঁজ-খবর পর্যন্ত নেয়নি।

এদিকে স্ত্রী ও সন্তান হারিয়ে বাকরুদ্ধ সুফিয়া বেগমের স্বামী আবদুল মালেক। তাঁর চোখে শুধুই অন্ধকার। তাঁর স্ত্রী ও ছেলে অপর দুজনকে বাঁচাতে পুকুরে নেমেছিল।

এদিকে এ ঘটনার পর দৌলতখান উপজেলার উত্তর জয়নগর গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, সেখানকার মানুষের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। একই সঙ্গে চরম ক্ষোভ দেখা যায় পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির লোকজনের ওপর।

দৌলতখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. এনায়েত হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, লাশগুলোর মধ্যে তিনটি ভোলা সদর হাসপাতালে এবং একটি বাড়িতে রয়েছে। আইনি ব্যবস্থা শেষে পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হবে।

Advertisement