Beta

অতিরিক্ত লবণ খেলে ক্যান্সারের ঝুঁকি!

২০ মার্চ ২০১৭, ১৩:৫১

লবণের অনেক গুণ রয়েছে। আমাদের রান্নাবান্নার অপরিহার্য উপাদান হচ্ছে লবণ। হজমের জন্য মানুষের শরীরে প্রয়োজনীয় সোডিয়ামের জোগান দেয় এই লবণ, এ ছাড়া রক্ত প্রবাহ অব্যাহত রাখতেও এর অবদান অনেক । তবে খাদ্যে অতিরিক্ত লবণের প্রভাব আপনার শরীরের জন্য হুমকি হতে পারে। স্বাস্থ্য সংক্রান্ত বিভিন্ন জটিলতার জন্যও কিন্তু এই লবণই দায়ী।

ঘরে বানানো খাবারের তুলনায় প্রায় সব ফাস্টফুড এবং প্রক্রিয়াজাত খাবারের মধ্যে অতিরিক্ত লবণ থাকে। অতিরিক্ত সোডিয়াম ও লবণ শিশুদের বিভিন্ন রোগের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। বিশেষজ্ঞরা পরামর্শ দিচ্ছেন শৈশব থেকেই বাচ্চাদের কম লবণ যুক্ত খাবারে অভ্যস্ত করতে।

আমাদের দৈনন্দিন খাবারের অনেকগুলোতেই কম সোডিয়াম বা লবণ কম থাকে, আপনি নিজেও নতুন খাবার তৈরি করতে পারেন যাতে লবণ কম থাকবে। যদি অতিরিক্ত লবণ খাওয়ার কুপ্রভাব সম্পর্কে আপনি বুঝতে পারেন তাহলে আপনি সুস্থ থাকবেন। চলুন স্বাস্থ্য সাময়িকী বোল্ডস্কাইয়ের সৌজন্যে জেনে নিই অতিরিক্ত লবণ খেলে আমাদের কী ধরনের স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে পড়তে হয়।

উচ্চ রক্তচাপ

অতিরিক্ত লবণ খাওয়ার নেতিবাচক দিক না জেনেই যদি আপনি প্রতিদিন অতিরিক্ত পরিমাণে লবণ খান তাহলে এর পরিণামে আপনার জন্য অপেক্ষা করছে উচ্চ রক্তচাপ। আর এই উচ্চ রক্তচাপ আপনার হৃদপিণ্ড হতে আসা ধমনিগুলোকে ক্ষতিগ্রস্ত করবে। তাই লবণ খাওয়া কমিয়ে দিয়ে আপনার হৃদয়ের ওপর চাপ কমিয়ে ফেলুন। এতে আপনার হৃদপিণ্ড সুস্থ থাকবে।

হৃদযন্ত্রজনিত রোগ

খাদ্যে অতিরিক্ত লবণ গ্রহণের ফলে উচ্চরক্তচাপের পাশাপাশি হৃদযন্ত্রজনিত বিভিন্ন সমস্যা যেমন হার্ট অ্যাটাক, স্ট্রোক, হার্ট ফেইলিউরের সম্মুখীন হবেন আপনি। তবে এটা অতিরিক্ত লবণ খাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই হবে না। এটি মূলত রক্তচাপের অবিরত এবং ঘন ঘন দীর্ঘমেয়াদি পরিবর্তনের ফলে হয়ে থাকে। আর এই পরিবর্তন নির্ভর করে অতিরিক্ত লবণ খাওয়ার ওপর।

ক্যান্সার

লবণের কারণে ক্যান্সার হয়? হওয়ার ঝুঁকি আছে, এমনটাই মনে করেন গবেষকরা। অতিরিক্ত লবণ ও প্রচুর সোডিয়ামযুক্ত খাবার খেলে ক্যান্সার হতে পারে, গবেষণা বলছে, যারা অতিরিক্ত লবণাক্ত খাবার খায় তাদের পাকস্থলীর ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।

কিডনির রোগ

শরীরের ইলেকট্রোলাইটের ভারসাম্য রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে সোডিয়ামের। যখন আপনি অতিরিক্ত লবণযুক্ত খাদ্য গ্রহণ করবেন তখন আপনার শরীরে সোডিয়ামের ভারসাম্যে পরিবর্তন আসবে। যা আপনার কিডনির স্বাভাবিক ক্রিয়াকে হ্রাস করবে, যার কারণে শরীরের পানি কমে যাবে ফলে উচ্চরক্তচাপ বাড়বে।

পাকস্থলির আলসার

অতিরিক্ত লবণের সঙ্গে পাকস্থলির আলসারের রয়েছে নিবিড় সম্পর্ক। অতিরিক্ত লবণ পাকস্থলির আস্তরণকে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করে। শরীরের পানির ভারসাম্যও নষ্ট করে অতিরিক্ত লবণ।

অসটিওপোরোসিস (হাড়ের ক্ষয় রোগ)

অসটিওপোরোসিস একটি হাড়ের রোগ। এই রোগ হলে হাড় ক্ষয়ে যায়। এটি হওয়ারও অন্যতম কারণ অতিরিক্ত লবণ গ্রহণ। শরীরে চাহিদার চেয়ে অতিরিক্ত পরিমাণে সোডিয়াম থাকলে, আপনার বেশি বেশি পানি খাওয়ার প্রবণতা বাড়বে। আর এই অতিরিক্ত পানি প্রস্রাব হয়ে বের হয়ে আসার সময় আপনার শরীর থেকে অতিরিক্ত পরিমাণে ক্যালসিয়াম নিয়ে বের হবে। এ কারণেই হাড় ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

চিন্তা-চেতনার প্রতি নেতিবাচক প্রভাব

যদি প্রতিদিন আপনি অতিরিক্ত লবণযুক্ত খাবার খান হালকা বা মাঝারি ধরনের বিভিন্ন মানসিক সমস্যায় ভুগবেন। এ ধরনের সমস্যায় অনেক কিছু ভুলে যাবেন, যুক্তি দিয়ে কথা বলতে পারবেন না, মনোযোগ নষ্ট হবে। শরীরে অতিরিক্ত সোডিয়ামের উপস্থিতির ফলে মস্তিস্কের কর্মক্ষমতাও হ্রাস পেতে পারে।

আপনার শরীরে সোডিয়ামের প্রয়োজন রয়েছে। তবে অতিরিক্ত লবণ গ্রহণ স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি করতে পারে। তাই এমন খাবার খান যাতে মাঝারি মাত্রায় লবণ থাকে।

Advertisement
Advertisement
0.87451910972595