Beta

আন্তর্জাতিক নৃত্য দিবস

শিল্পকলায় ‘নৃত্য উৎসব’ শুরু

২৮ এপ্রিল ২০১৬, ১৩:০২

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল মিলনায়তনে ঢাক-ঢোলের তালে তালে নৃত্য করে যাচ্ছেন নৃত্যশিল্পীরা, ছোট-বড়দের মিলিত এই নৃত্যানন্দের ছন্দে ছন্দে একাডেমির মূল মিলনায়তনের বাইরের খোলা প্রাঙ্গণজুড়ে যেন বয়ে গেল উচ্ছ্বসিত প্রাণের আনন্দধারা। 

আজ ২৯ এপ্রিল আন্তর্জাতিক নৃত্য দিবস উপলক্ষে এমনই আনন্দঘন পরিবেশে শুরু হলো নৃত্য সংগঠন ‘নৃত্যাঞ্চল’ আয়োজিত তিন দিনের ‘নৃত্য উৎসব’।

গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল মিলনায়তনের মঞ্চে স্থাপিত দুটি ভাস্কর্যের পায়ে দুটি ঘুঙুর পরিয়ে যৌথভাবে এ উৎসবের উদ্বোধন করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ভারতের প্রখ্যাত নৃত্যগুরু ও ভরতনাট্যমের শিল্পী লীলা স্যামসন এবং বিশেষ অতিথি চিত্রশিল্পী মুস্তাফা মনোয়ার।

উৎসবের উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে লীলা স্যামসন বলেন, ‘শিবলী ও নীপার নৃত্যাঞ্চলের এমন শৈল্পিক নৃত্য আমাকে মুগ্ধ করেছে। এমন একটি আয়োজনে আসতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি। নৃত্যাঞ্চলের শিল্পীদের এমন শৈল্পিক পরিবেশনায় আমি অনেক বেশি আনন্দিত।’

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে মুস্তাফা মনোয়ার বলেন, ‘সুন্দর যখন আরো সুন্দর হয়, তখন সেটা ধ্রুপদি হয়। সুন্দর মানেই ধ্রুপদি আর ধ্রুপদি মানেই সুন্দর।’ তিনি আরো বলেন, ‘রবিঠাকুর বলেছিলেন, পৃথিবীর তিন ভাগ নৃত্যালোক আর এক ভাগ শব্দালোক। সমুদ্রের ঢেউ, বাতাসের গতি সবকিছুই নৃত্যালোক। মানুষের চলার গতি, সুন্দরের গতি সবই তো নৃত্যালোক। নৃত্যকলা হচ্ছে ভারি সুন্দর একটা বিষয়।’

উদ্বোধনী আয়োজনে দেশের বিশিষ্ট নৃত্যশিল্পী রাহিজা খানম ঝুনুকে দেওয়া হয় নৃত্যাঞ্চল সম্মাননা। উত্তরীয় পরিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি এ সময় তাঁর হাতে ক্রেস্ট তুলে দেয় নৃত্যাঞ্চল।

গতকাল উদ্বোধনী সন্ধ্যা সাজানো হয় কত্থক নাচ দিয়ে। এতে নৃত্যাঞ্চলের দুই শতাধিক শিল্পী অংশ নেন।

নৃত্য উৎসবের শুরুতেই ছিল নৃত্যশিল্পীদের কত্থক নৃত্যের তাল, লয়, মুদ্রার সমন্বিত শৈল্পিক ইন্দ্রজাল। ধ্রুপদি নাচের শুদ্ধতায় অবগাহন করে নৃত্যানুরাগী দর্শক মন্ত্রমুগ্ধের মতো তন্ময় হয়ে উপভোগ করেন পুরো আয়োজন। 

আজ উৎসবের দ্বিতীয় আসরে নৃত্যাঞ্চল পরিবেশন করবে ‘আলী বাবা ও চল্লিশ চোর’ এবং ৩০ এপ্রিল উৎসবের শেষ দিন সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের সঙ্গে নৃত্য পরিবেশন করবেন নৃত্যাঞ্চলের শিল্পীরা।

Advertisement
1.014533996582