Beta

নোবেল শান্তি পুরস্কারে এগিয়ে জলবায়ুকর্মী গ্রেটা থানবার্গ

০৯ অক্টোবর ২০১৯, ২১:৫৩

অনলাইন ডেস্ক

বর্তমান যুগটাই হলো অনলাইনে ভাইরাল হওয়ার যুগ। তার প্রজন্মের অন্য অনেক কিশোর-কিশোরীই ভাইরাল হয়েছে মজাদার টিকটক ভিডিও বানিয়ে, ইউটিউবে কাপ সং গেয়ে কিংবা ইনস্টাগ্রামে মেক-আপ টিউটোরিয়াল আপলোডের মাধ্যমে। অনলাইনের কল্যাণেই ভাইরাল হয়েছেন ১৬ বছর বয়সী সুইডিশ কিশোরী গ্রেটা থানবার্গও। কিন্তু তার ঘটনা কিছুটা আলাদা। গ্রেটা জনপ্রিয়তা পেয়েছেন কিশোরীসুলভ কোনো কাজের মাধ্যমে নয়, বরং বিশ্বনেতাদের মুখে ঝামা ঘষে দেওয়ার মতো এক বক্তৃতার মাধ্যমে।

আর সেই অগ্নিঝরা বক্তৃতা তাঁকে দিয়েছে বিশ্বব্যাপী প্রতিবাদী কণ্ঠ বা ‘জলবায়ু কন্যা’ খেতাব। এবার নতুন গুঞ্জন উঠেছে তাঁকে নোবেল পুরস্কার দেওয়াকে কেন্দ্র করে।

প্রতিবছরের মতো এবারও নোবেল পুরস্কারের এই ক্যাটাগরি নিয়েই সবার আগ্রহ বেশি। শুক্রবার বাংলাদেশ সময় বিকালে নোবেল শান্তি পুরস্কার ঘোষণা করা হবে। নোবেল শান্তি পুরস্কারে উঠে এসেছে দুনিয়া কাঁপানো জলবায়ুকর্মী গ্রেটা থানবার্গের নাম। বিশ্লেষকরা মনে করছেন, চলতি বছর নোবেল শান্তি পুরস্কার পাওয়ার জোর সম্ভাবনা আছে গ্রেটার। তার পাওয়ার সম্ভাবনা নিয়ে অনলাইনে বাজিভিত্তিক ওয়েবসাইটগুলো বড় অঙ্কের বাজিও ধরেছে তাকে নিয়ে।

সংবাদমাধ্যম দ্য টাইমস এক প্রতিবেদনে জানায়, এ বছর শান্তিতে নোবেল পুরস্কারের জন্য ৩০১টি মনোনয়ন জমা পড়েছে নোবেল কমিটির জুরি বোর্ডের টেবিলে। এদের মধ্যে ২২৩ জন ব্যক্তি ও ৭৮টি প্রতিষ্ঠান। মনোনয়ন প্রাপ্তদের তালিকা সাধারণত গোপন রাখা হলেও অনেকেই নোবেল জয়ীর নাম আগে থেকে অনুমান করে থাকেন। আর এ বছর সেই অনুমানের সিংহভাগ যাচ্ছে জলবায়ুকর্মী গ্রেটা থানবার্গের দিকেই।

জলবায়ু পরিবর্তন রোধে ভূমিকার দাবিতে ২০১৮ সালে সুইডেনের পার্লামেন্টের বাইরে অবস্থান নেন স্কুল শিক্ষার্থী গ্রেটা থানবার্গ। তার ওই অবস্থানের মধ্য দিয়ে দুনিয়াজুড়ে বেগবান হয় জলবায়ু আন্দোলন। তার প্রতি সমর্থন জানিয়ে বিশ্বের নানা প্রান্তে এই আন্দোলনে শামিল হয় লাখ লাখ মানুষ। আর কিছুদিন আগে জাতিসংঘ আয়োজিত এক সম্মেলনে জলবায়ু পরিবর্তনরোধে বিশ্বনেতারা যথাযথ ভূমিকা রাখছেন না অভিযোগ করে তাদের বিরুদ্ধে বিশ্বাসঘাতকতার অভিযোগ তোলেন এই জলবায়ুকর্মী।

সম্প্রতি জলবায়ুকর্মী গ্রেটাকে নিয়ে বিশ্বব্যাপী আলোচনার কারণে অনেকে ধারণা করছেন যে, এবারের শান্তির নোবেল পুরস্কারটি গ্রেটার হাতেই উঠতে যাচ্ছে। এরই মধ্যে নোবেল পুরস্কারের বিকল্প হিসেবে পরিচিত সুইডেনের ‘রাইট লাইভলিহুড অ্যাওয়ার্ড’ পেয়েছেন গ্রেটা। এছাড়া অ্যামনেস্টির শীর্ষ সম্মানও পেয়েছেন এই জলবায়ুকর্মী।

Advertisement