Beta

ব্যাংকের ভুলে পাওয়া অর্থ দেদারসে খরচ করলেন দম্পতি, তারপর...

১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৩:৫৩

অনলাইন ডেস্ক

ব্যাংকের ভুলে নিজেদের অ্যাকাউন্টে জমা হওয়া মোটা অঙ্কের অর্থ দেদারসে খরচ করার পর বিপাকে পড়েছেন এক মার্কিন দম্পতি। রবার্ট উইলিয়ামস (৩৬) ও টিফানি উইলিয়াম (৩৫) দম্পতির ব্যাংক অ্যাকাউন্টে হঠাৎ করে জমা হয় এক লাখ ২০ হাজার মার্কিন ডলার। এত অর্থ পেয়ে মনের আনন্দে খরচ করতে থাকেন ওই দম্পতি।

যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়ায় এমন ঘটনা ঘটে বলে সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে। পুলিশ জানায়, হঠাৎ পাওয়া অর্থ দিয়ে নতুন গাড়িসহ নানা কিছু কিনে ফেলেন ওই দম্পতি। তাতে খরচ হয়ে যায় প্রায় সব অর্থ।

উইলিয়ামস দম্পতির বিরুদ্ধে চুরি ও চুরি যাওয়া সম্পদ হস্তগত করার অভিযোগ আনা হয়েছে। গতকাল সোমবার উইলিয়ামস দম্পতি লাইকামিং কাউন্টির আদালতে হাজির হয়ে প্রাথমিক শুনানিতে নিজেদের বক্তব্য উপস্থাপন করেন। তবে গণমাধ্যমের কাছে এ বিষয়ে মুখ খোলেননি ওই দম্পতি। বর্তমানে তাঁরা জামিনে আছেন।

পুলিশ জানায়, গত ৩১ মে নিজেদের বিবিঅ্যান্ডটি ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ওই অর্থ দেখতে পান উইলিয়ামস দম্পতি। একটি বিনিয়োগ প্রতিষ্ঠানের অ্যাকাউন্টে ওই অর্থ জমা হওয়ার কথা ছিল। এরপর ২০ জুন নিজেদের ভুল টের পেয়ে সঠিক অ্যাকাউন্টে অর্থ জমা করে ব্যাংক। কিন্তু ততক্ষণে ব্যাংককে না জানিয়ে প্রায় এক লাখ সাত হাজার ডলার খরচ করে ফেলেন উইলিয়ামস দম্পতি।  

ওই অর্থ দিয়ে উইলিয়ামস দম্পতি মোট পাঁচটি গাড়ি এবং গৃহস্থালিতে ব্যবহার্য জিনিসপত্র কেনেন। এ ছাড়া বন্ধুদের ১৫ হাজার ডলার ধারও দেন তাঁরা।

পেনসিলভানিয়া পুলিশ কর্মকর্তা অ্যারন ব্রাউন বলেন, ‘আমরা তাঁদের ধরার আগেই প্রায় সব অর্থ খরচ করে ফেলেন তাঁরা।’

ব্রাউন আরো বলেন, ‘টিফানি ব্যাংককে জানিয়েছিলেন, তাঁর স্বামী ওই অর্থের সিংহভাগ খরচ করে একটি গাড়ি কিনেছেন। তিনি স্বামীর সঙ্গে কথা বলে ব্যাংকের সঙ্গে দেনা শোধ করার চুক্তিতে আসবেন বলে জানান।’

কিন্তু এরপর আর ওই দম্পতির সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেনি ব্যাংক। এরপর ব্যাংকের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে মামলা করা হলে তদন্তে নামে পুলিশ। গত জুলাইয়ে তদন্তকারীদের কাছে নিজেদের অপরাধ স্বীকার করেন ওই দম্পতি। উইলিয়ামস দম্পতি স্বীকার করেন, ‘তাঁদের অ্যাকাউন্টে জমা হওয়া অর্থের মালিক তাঁরা নন। তবুও সে অর্থ তাঁরা খরচ করেছেন।’ ব্যাংকের ভুলে অর্থ জমা হওয়ার আগে উইলিয়ামস দম্পতির অ্যাকাউন্টে হাজার খানেক মার্কিন ডলার জমা ছিল। 

এ বিষয়ে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ এক বিবৃতিতে বলে, ‘যদিও আমরা গ্রাহকের ব্যক্তিগত তথ্যের বিষয়ে বিস্তারিত কিছু বলতে পারি না, তবে আমাদের গ্রাহকরা কোনো কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হলে আমরা সবসময়ই যত দ্রুত সম্ভব ব্যবস্থা নিই।’

Advertisement