Beta

কাশ্মীর নিয়ে যুবক মোদির স্বপ্ন পূরণ করলেন আজকের মোদি

০৫ আগস্ট ২০১৯, ১৮:৫৪ | আপডেট: ০৫ আগস্ট ২০১৯, ১৯:১৯

অনলাইন ডেস্ক

ভারতের জম্মু-কাশ্মীরকে দেওয়া বিশেষ মর্যাদা বা ৩৭০ ধারা তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্তে বেজায় খুশি বিজেপি। এই সিদ্ধান্ত ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির একটি পুরোনো ছবি টুইট করে বিজেপির সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক রাম মাধব টুইট করেছেন, কথা রেখেছেন মোদি।

মোদির পুরোনো ছবিটি অনেক বছর আগের। গাল ভর্তি কালো দাড়ি, মাথার চুলেও তখন তারুণ্য। মঞ্চে বসে আছেন নরেন্দ্র দামোদরদাস মোদি। মঞ্চের পিছন দিকে ঝুলানো ব্যানারে লেখা ৩৭০ ধারা আর সন্ত্রাসবাদের অবসান চাই।

এক সময় যে দাবিতে আন্দোলন করেছিলেন রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের নেতা, আজ তিনিই ভারতের প্রধানমন্ত্রী। দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় বসার দুই মাস পেরোতে না পেরোতেই সেই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়িত হলো। ভারতের সংবিধান থেকে মুছে দেওয়া হলো ৩৭০ ধারা। উঠে গেল জম্মু ও কাশ্মীরের সাংবিধানিক বিশেষ মর্যাদা।

সেই সাদা-কালো পুরোনো ছবিই টুইট করেই আজ রাম মাধব লেখেন, 'প্রতিশ্রুতি পূরণ হলো।' অন্য একটি টুইটে তিনি লেখেন, 'আজকের দিনটি গৌরবের দিন। সাত দশক ধরে দেশের মানুষ যা চেয়েছিল, আজ তা বাস্তবায়িত হলো।'

জম্মু-কাশ্মীরকে দেওয়া ‘বিশেষ মর্যাদা’ তুলে নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। আজ সোমবার সকালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে মন্ত্রিসভার একটি বৈঠকের পর সংসদে এ ঘোষণা দেন তিনি।

দেশটির সংবিধানের ৩৭০ ধারার ফলে জম্মু-কাশ্মীরে চালু ছিল এই ‘বিশেষ মর্যাদা’। এরই মধ্যে ৩৭০ ধারার অবলুপ্তিতে সই করে দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ।

এ ব্যাপারে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ জানান, জম্মু ও কাশ্মীর পুনর্গঠিত হবে। রাজ্যটি দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে বিভক্ত হবে। একটি জম্মু ও কাশ্মীরে, অন্যটি লাদাখে।

কাশ্মীরে বিপুল পরিমাণ আধা সামরিক বাহিনী মোতায়েন করার পর এবং রাজ্যের দুই সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাহ ও মেহবুবা মুফতিকে গৃহবন্দি করে রাখার পর এ পদক্ষেপ নিল কেন্দ্রীয় সরকার।

Advertisement