Beta

৫০ বছর পর ফিরে এলো সাগরে ভাসানো বোতলবন্দি চিঠি

১৯ জুলাই ২০১৯, ১২:৪২ | আপডেট: ১৯ জুলাই ২০১৯, ১২:৫১

অনলাইন ডেস্ক
অস্ট্রেলিয়ার কিশোর জায়াহ এলোট (বাঁয়ে), যুক্তরাজ্যের পল গিলমোর (ডানের ছবির মাঝে)। ছবি : সংগৃহীত

অনেক বছর আগে বোতলে পুরে সাগরে ভাসানো হয়েছিল একটি চিঠি। এর মাঝে পেরিয়ে গেছে অর্ধশতাব্দী। এতকাল পর সে চিঠির সন্ধান মিলেছে। ঢেউয়ে ভেসে ভেসে চিঠিটি খুঁজে নিয়েছে তার প্রাপক। এখন কেবল উত্তরের অপেক্ষা!

১৯৬৯ সালে জাহাজে করে ভারত মহাসাগর পাড়ি দিয়ে পরিবারের সঙ্গে যুক্তরাজ্য থেকে অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে যাচ্ছিল ১৩ বছর বয়সী কিশোর পল গিলমোর। সে সময় নিরুদ্দেশে সাগরে একটি চিঠি ভাসিয়ে দেয় গিলমোর।

গত মঙ্গলবার বাবার সঙ্গে মাছ ধরতে গিয়ে ৫০ আগের বোতলবন্দি সেই চিঠিটি খুঁজে পায় আরেক ১৩ বছর বয়সী কিশোর জায়াহ এলোট। দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ার আয়ার উপদ্বীপের তালিয়া বেলাভূমিতে চিঠিটির সন্ধান মেলে। তারপরই খবরটি ছড়িয়ে পড়ে সংবাদমাধ্যমে। সন্ধান মেলে চিঠির প্রাপক পল গিলমোরেরও।

১৯৬৯ সালের ১৭ নভেম্বরের ওই চিঠিতে গিলমোর লেখে, ফেয়ারস্টার নামক একটি জাহাজে করে সে অস্ট্রেলিয়া যাচ্ছে। ফ্রিম্যান্টল থেকে এক হাজার কিলোমিটার দূরে তাদের অবস্থান। কেউ চিঠিটি পেলে তাকে এর উত্তর লেখার অনুরোধ জানায় কিশোর গিলমোর।

সেদিনের সেই কিশোর গিলমোরের বয়স এখন ৬৩ বছর। ব্যবসায়ী ও গার্ডেনার গিলমোরের সঙ্গে বিবিসির পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হলে উচ্ছ্বসিত হয়ে তিনি বলেন, ‘আমার স্পষ্ট মনে আছে ওই চিঠি ভাসানোর স্মৃতিগুলো। আমার কাছে তা খুব গুরুত্ববহ ছিল। দুনিয়ার আরেক প্রান্তে আমার অভিযাত্রার অংশ ছিল সেগুলো।’

৫০ বছর আগে সাগরে ভাসানো পল গিলমোরের চিঠি। ছবি : সংগৃহীত

‘আমি রবিনসন ক্রুসোর মতো অ্যাডভেঞ্চার গল্পকাহিনী পড়তে ভালোবাসতাম। চিঠি ভাসানোর সময় আমি স্বপ্ন দেখতাম, অজানা দ্বীপের কোনো সুন্দরী মেয়ে আমার চিঠিটি পাবে। সব সময়ই ভাবতাম চিঠির একটি জবাব আসবে,’ বলেন গিলমোর।

‘আমি সব সময়ই ভ্রমণ আর অভিযাত্রা ভালোবাসি। সেই কিশোর বেলা থেকে কোনো না কোনোভাবে আমি ভ্রমণের মধ্যেই আছি,’ যোগ করেন গিলমোর।

কৈশোরে অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার চার বছর পর ১৯৭৩ সালে গিলমোর মাতৃভূমি যুক্তরাজ্যে ফিরে যান। এরপর পড়ালেখা শেষ করে ইংরেজির শিক্ষক হিসেবে স্ক্যান্ডিনেভিয়া ও মধ্যপ্রাচ্যে কাজ করেন।

চিঠি পাওয়ার ব্যাপারে জানতে চাইলে এলোটের বাবা পল এলিয়ট সংবাদ সংস্থা এবিসি নিউজকে বলেন, ‘এলোট যখন প্রথমে ওই চিঠিটা নিয়ে আসে, আমি ভেবেছিলাম ধাপ্পাবাজি!’

এদিকে কিশোর এলোট এখন গিলমোরকে চিঠির উত্তর লেখার জন্য অপেক্ষা করছে। গিলমোর ছুটিকালীন সফরে থাকায় তার এই অপেক্ষা।

এর আগে ২০১৮ সালে পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ার পার্থ অঞ্চলে ১৩২ বছর আগে সমুদ্রে ভাসানো একটি বোতলবন্দি চিঠি পাওয়া যায়। জানামতে, সেটিই এ ধরনের চিঠির ক্ষেত্রে সবচেয়ে পুরোনো। একটি জার্মান জাহাজ থেকে ওই চিঠি সমুদ্রে ভাসানো হয় বলে অস্ট্রেলিয়ার বিশেষজ্ঞরা নিশ্চিত করেন।

Advertisement