ভারতে চালু হওয়ার ৭ বছর আগেই ই-মেইল ব্যবহার করেন মোদি!

১৩ মে ২০১৯, ১৯:৩৭ | আপডেট: ১৩ মে ২০১৯, ১৯:৩৯

অনলাইন ডেস্ক

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এক টিভি সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, তিনি ১৯৮৭-৮৮ সালের দিকে ই-মেইল এবং ডিজিটাল ক্যামেরা ব্যবহার করেছিলেন। এর পর পরই সামাজিক মাধ্যমজুড়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

সামাজিক মাধ্যমে ভেসে বেড়ানো সাক্ষাৎকারের ভিডিও ক্লিপে মোদিকে বলতে দেখা যাচ্ছে, ১৯৮৮ সালে তিনি একটি র‍্যালি থেকে প্রবীণ বিজেপি নেতা এল কে আদভানির রঙিন ছবি তুলে তা সঙ্গে সঙ্গে দিল্লিতে পাঠান। দিল্লির পত্রপত্রিকায় তা পরেরদিন ছাপা হলে তাজ্জব বনে যান আদভানি।

ভারতীয় টেলিভিশন ন্যাশন নিউজকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তাঁর ‘স্বভাবজাত বুদ্ধিমত্তা’ সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে মোদি এসব কথা বলেন। এ সময় তিনি ১৯৮৭ সালে ই-মেইল ও ডিজিটাল ক্যামেরা ব্যবহারের কথা জানান।

অথচ এনডিটিভি ও ফার্স্টপোস্টসহ বেশ কয়েকটি ভারতীয় গণমাধ্যমের ফ্যাক্ট চেকিংয়ে জানানো হয়, ভারতে ১৯৯৫ সালের ১৪ আগস্ট বাণিজ্যিকভাবে সর্বপ্রথম ইন্টারনেট সেবা চালু হয়। সারা পৃথিবীতে প্রথম সাধারণ মানুষের জন্য ইন্টারনেট সেবা তথা ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েব সেবা দেওয়া শুরু হয় ১৯৯১ সালের ৬ আগস্ট।

ইন্টারনেট ব্যবহার করে পৃথিবীর প্রথম রাষ্ট্রপ্রধান হিসেবে ই-মেইল ব্যবহার করেন তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিন্টন। সেটিও ১৯৯৮ সালের ৭ নভেম্বর। এরও প্রায় ১০ বছর আগে ই-মেইল ব্যবহারের দাবি করায় ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছেন মোদি।

ফ্যাক্ট চেকে আরো জানানো হয়, ১৯৮৭ সালেই পৃথিবীর প্রথম ডিজিটাল ক্যামেরা বাজারে ছাড়ে জাপানি কোম্পানি নিকন।

পাকিস্তানের বালাকোটে ভারতীয় যুদ্ধবিমান ভূপাতিত হওয়ার বিষয়ে কথা বলতে গিয়ে সাক্ষাৎকারে নরেন্দ্র মোদি বলেন, ‘আবহাওয়া খারাপ হওয়ার কারণে অসুবিধা হওয়ার কথা নয়। মেঘের কারণে ভারতীয় যুদ্ধবিমানের রাডারকে ফাঁকি দেওয়াটা সহজ হতো।’