Beta

মুনমুন, শতাব্দী, বাবুল সুপ্রিয়দের ভাগ্য পরীক্ষা আজ

২৯ এপ্রিল ২০১৯, ১১:২৯

কলকাতা সংবাদদাতা

ভারতের সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের চতুর্থ দফার ভোট গ্রহণ চলছে। আজ সোমবার সকাল ৭টা থেকে শুরু ভোট গ্রহণ, চলবে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত।

এই পর্বে ভারতের নয়টি রাজ্যের ৭১টি লোকসভা কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ হচ্ছে। এর মধ্যে রয়েছে মহারাষ্ট্রের ১৭টি আসন, রাজস্থানের ১৩টি, উত্তরপ্রদেশের ১৩, পশ্চিমবঙ্গের আটটি, মধ্যপ্রদেশের ছয়টি, ওড়িশার ছয়টি, বিহারের পাঁচটি, ঝাড়খন্ডের তিনটি ও জম্মু-কাশ্মীরের একটি।

এই পর্বে মোট ভোটারের সংখ্যা ১২ কোটি ৭৯ লাখ। ভাগ্য নির্ধারণ হবে ৯৬১ প্রার্থীর। শান্তিপূর্ণ ও অবাধ ভোট গ্রহণের লক্ষ্যে কঠোর নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। মোট ভোট গ্রহণ কেন্দ্র থাকছে এক লাখ ৪০ হাজার।

এই পর্বে ভারতের একাধিক মন্ত্রীর ভাগ্য পরীক্ষা হবে। এর মধ্যে রয়েছেন বেগুসরাই কেন্দ্রের বর্তমান কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গিরিরাজ সিং, মহারাষ্ট্রের ধুলে কেন্দ্রে সুভাষ ভামরে, পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান-দুর্গাপুর কেন্দ্রে সুরন্দরজিত সিং আলুওয়ালিয়া; আসানসোল কেন্দ্রে বাবুল সুপ্রিয়র মতো হেভিওয়েট বিজেপি প্রার্থীরা যেমন আছেন, তেমনি উত্তরপ্রদেশের ফারুকাবাদ কেন্দ্রে কংগ্রেস প্রার্থী সালমান খুরশিদ, পশ্চিমবঙ্গের বহরমপুর কেন্দ্রে কংগ্রেসের অধীর রঞ্জন চৌধুরী, মুম্বাই দক্ষিণ কেন্দ্রে কংগ্রেসের মিলিন্দ মুরলি দেওরা, বিহারের কারাকাট কেন্দ্রে রাষ্ট্রীয় লোক সমতা পার্টির প্রধান উপেন্দ্র কুশওয়ারার মতো সাবেক মন্ত্রীরাও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এ ছাড়া এই পর্বে অন্য হেভিওয়েটদের মধ্যে রয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের  আসানসোল কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী তথা অভিনেত্রী মুনমুন সেন, বীরভূম কেন্দ্রে তৃণমূলের প্রার্থী তথা অভিনেত্রী শতাব্দী রায়, বেগুসরাই কেন্দ্রে সিপিআই প্রার্থী কানাইয়া কুমার, মুম্বাই উত্তর কেন্দ্রে কংগ্রেসের অভিনেত্রী প্রার্থী ঊর্মিলা মাতন্ডকর, কনৌজ কেন্দ্রে সমাজবাদী পার্টির প্রধান ও উত্তরপ্রদেশের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদবের স্ত্রী ডিম্পল যাদব, মধ্যপ্রদেশের ছিন্দওয়ারা কেন্দ্রে রাজ্যটির মুখ্যমন্ত্রী কমলনাথের ছেলে কংগ্রেসের প্রার্থী নকুল নাথ, মুম্বাই উত্তর-মধ্য কেন্দ্রে অভিনেতা সঞ্জয় দত্তের বোন কংগ্রেস প্রার্থী প্রিয়া দত্ত এবং এই কেন্দ্রের বর্তমান বিদায়ী সংসদ সদস্য বিজেপির পুনম মহাজন। 

চতুর্থ দফার নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের আটটি লোকসভা কেন্দ্র হচ্ছে  বহরমপুর, কৃষ্ণনগর, রানাঘাট, বর্ধমান পূর্ব, বর্ধমান-দুর্গাপুর, আসানসোল, বোলপুর ও বীরভূম। প্রতিটি কেন্দ্রেই রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের সঙ্গে লড়াই হচ্ছে বিজেপি, কংগ্রেস ও বামদের।

গত লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের এই আটটি লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে বহরমপুর কেন্দ্রে জয় পেয়েছিল কংগ্রেস। আসানসোল কেন্দ্রে জয় পেয়েছিল বিজেপি। এ ছাড়া বাকি ছয়টি কেন্দ্র কৃষ্ণনগর, রানাঘাট, বর্ধমান পূর্ব, বর্ধমান-দুর্গাপুর, বীরভূম, বোলপুর কেন্দ্র দখলে নেয় রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস।

চতুর্থ দফার নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গে ৬৮ প্রার্থীর ভাগ্য নির্ধারণ হবে। মোট ভোটারের সংখ্যা ১৩ কোটি ৪২ লাখ আট হাজার ৬৯৩ জন। এই পর্বে সবচেয়ে আকর্ষণ থাকবে আসানসোল কেন্দ্রের দিকে। কারণ, এখানে একদিকে বিজেপির প্রার্থী হয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও সংগীতশিল্পী বাবুল সুপ্রিয়। অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গের শাসক দল তৃণমূলের টিকেটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন অভিনেত্রী মুনমুন সেন।

২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে এই আসানসোল কেন্দ্রে তৃণমূলের প্রার্থী দোলা সেন ও সিপিআইএমের বংশগোপাল চৌধুরীকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো জয় পান বিজেপির বাবুল সুপ্রিয়। পরে তিনি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হন। গত লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের বাঁকুড়া কেন্দ্র থেকে শাসক দল তৃণমূলের হয়ে প্রথম জয় পেয়েছিলেন সুচিত্রাকন্যা মুনমুন সেন। এবারে মুনমুন সেনকে বাঁকুড়া কেন্দ্র থেকে সরিয়ে আসানসোল কেন্দ্রে এনেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

ভারতের সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনে ভারতের ৫৪৩টি লোকসভা আসনে সাত পর্বে ভোট নেওয়া হচ্ছে। তিন পর্বে ৩০৩টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ শেষ হয়েছে। এর পরে ভোট হবে ৬ মে, ১২ মে ও ১৯ মে। গণনা হবে আগামী ২৩ মে।

Advertisement