Beta

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হতে চান ‘সমকামী’ মেয়র

১৫ এপ্রিল ২০১৯, ২২:৫৩

অনলাইন ডেস্ক
২০২০ সালের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট দলের প্রার্থী হতে চান ইন্ডিয়ানা অঙ্গরাজ্যের সাউথ বেন্ডের মেয়র পিট বাটিগেইগ। ছবি : সংগৃহীত

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হতে চান দেশটির ইন্ডিয়ানা অঙ্গরাজ্যের সাউথ বেন্ড শহরের সমকামী মেয়র পিট বাটিগেইগ।

আগামী বছর সেই নির্বাচন হবে। এজন্য ডেমোক্রেটিক পার্টির মনোনয়ন চান পিট। রোববার প্রার্থিতার লড়াইয়ে নামার আনুষ্ঠানিকতা শুরু করেন তিনি। প্রচারণার শুরুর দিনে ‘লোকে আমাকে মেয়র পিট’ বলে ডাকে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আত্মপরিচয় নিয়ে বিভক্তিমূলক রাজনীতি বলতে যা বোঝায় হোয়াইট হাউসে এখন তাই চলছে।’

পিট বলেন, ‘মধ্যবিত্ত এবং শ্রমিক শ্রেণির বিভাজনের মতোই বর্ণপরিচয়কে ব্যবহার করে আমাদেরকে বিভক্ত করে ফেলা হচ্ছে। এসব থেকে আমাদের সরে আসার সময় এসে গেছে।’

পিট প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলে তিনিই হবেন যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসের সর্বকনিষ্ঠ প্রেসিডেন্ট। ৩৭ বছর বয়সী বাটিগেইগ নিজেকে প্রকাশ্যে সমকামী হিসেবে পরিচয় দিয়ে থাকেন।

স্বামী চ্যাস্টেন গ্লেজারের (বাঁয়ে) সঙ্গে পিট বাটিগেইগ। ছবি : সংগৃহীত

সমকামিতা নিয়ে গত সপ্তাহেও দেশটির ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের সঙ্গে বাদানুবাদে জড়িয়ে মার্কিন গণমাধ্যমে আলোচনায় আসেন দুইবারের নির্বাচিত মেয়র পিট বাটিগেইট। জেন্ডার সমঅধিকার নিয়ে পেন্সের দেওয়া বক্তব্যের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘স্যার, আপনার ঝগড়া আমার সঙ্গে নয়, বরং তা আমার সৃষ্টিকর্তার সঙ্গে।’

মাইক পেন্স এক সময় ইন্ডিয়ানা অঙ্গরাজ্যের গভর্নর ছিলেন। সমকামিতা নিয়ে বাটিগেইগের দেওয়া বক্তব্যকে নিজের খ্রিস্টধর্মীয় বিশ্বাস ও ব্যক্তিসত্ত্বার সঙ্গে যায় না বলে একটি টকশোতে উল্লেখ করেন পেন্স।

জানুয়ারিতে প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী হবেন বলে জানানোর পর থেকে এ পর্যন্ত সাত মিলিয়ন ডলার তহবিলও সংগ্রহ করেছেন পিট বাটিগেইগ।

পিটের স্বামী চ্যাস্টেন গ্লেজার জুনিয়র স্কুলের মানবিকতা ও নাট্য বিভাগের শিক্ষক। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রভাবশালী গণমাধ্যমগুলোতে ইন্ডিয়ানা অঙ্গরাজ্যের এই সমকামি দম্পতি নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

মার্কিন নেভির গোয়েন্দা কর্মকর্তা হিসেবে আফগানিস্তানেও দায়িত্ব পালন করেছেন অক্সফোর্ড ও হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্কলারশিপ নিয়ে শিক্ষাজীবন শেষ করা পিট বাটিগেইগ।

Advertisement