Beta

অভিবাসনপ্রত্যাশীদের সংকট, সরে দাঁড়ালেন ট্রাম্পের মন্ত্রী

০৮ এপ্রিল ২০১৯, ১৪:৩২

অনলাইন ডেস্ক
কির্সটেন নিয়েলসেন সরে দাঁড়িয়েছেন ট্রাম্প প্রশাসন থেকে। ছবি : রয়টার্স

পদত্যাগ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের ‘হোমল্যান্ড সিকিউরিটি’ বিষয়কমন্ত্রী কির্সটেন নিয়েলসেন। তিনি দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিতর্কিত সীমান্ত নীতি বাস্তবায়নের দায়িত্বে ছিলেন।

স্থানীয় সময় গতকাল রোববার বিকেলে পদত্যাগ করেন নিয়েলসেন। সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে, নিয়েলসেনকে পদত্যাগ করতে বাধ্য করেছেন খোদ দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

২০১৭ সালে ট্রাম্পের প্রশাসনে যোগ দেন নিয়েলসেন। ট্রাম্পের বেশ কিছু বিতর্কিত সীমান্ত নীতির বাস্তবায়ন নিয়ে কাজ করেন তিনি।

সীমান্তে প্রস্তাবিত দেয়াল নির্মাণের দায়িত্ব ছিল নিয়েলসেনের। ট্রাম্পের মতো নিয়েলসেনও অভিবাসনপ্রত্যাশীদের ব্যাপারে কঠোর ছিলেন। এ ব্যাপারে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতিতেই চলছিলেন নিয়েলসেন। আর এর কারণে দেশটির সীমান্তবর্তী এলাকায় অভিবাসনপ্রত্যাশীদের ভিড় ও বিক্ষোভ বেড়ে যায়। মেক্সিকো সীমান্তে শিশুসহ বহু মানুষ অবস্থান নেয়। এতে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন ট্রাম্প। দেশটির দক্ষিণ সীমান্তে এক লাখের মতো অভিবাসনপ্রত্যাশী আটক হয়েছেন বলে জানা যায়, যা গত এক দশকের মতো সর্বোচ্চ।  

গতকাল ট্রাম্প এক টুইট বার্তায় জানান, নিয়েলসেন পদ ছাড়ছেন। তিনি বলেন, ‘তাঁর কাজের জন্য আমি তাঁকে ধন্যবাদ জানাই।’ একই সঙ্গে জানান, ওই পদে ‘ইউএস কাস্টমস অ্যান্ড বর্ডার প্রটেকশন’ কমিশনারের দায়িত্ব পালনকারী কেলভিন ম্যাকএলেনানকে ভারপ্রাপ্ত মন্ত্রী করেছেন তিনি।  ট্রাম্প বলেন, ‘কেলভিনের ব্যাপারে আমি আত্মবিশ্বাসী।’

সিএনএন জানিয়েছে, নিয়েলসেন স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করেনি; বরং ট্রাম্পের চাপেই তিনি পদত্যাগ করলেন।

এদিকে পদত্যাগের কোনো কারণ জানাননি নিয়েলসেন। তিনি বলেছেন, ‘সরে যাওয়ার জন্য এটাই সঠিক সময়।’ তিনি বলেন, ‘মন্ত্রীর দায়িত্বে থাকাটা সারা জীবনের জন্য সম্মানজনক হয়ে থাকবে।’

Advertisement