Beta

হাজার কোটি টাকার প্রমোদতরীটি বেচে দেবে মালয়েশিয়া সরকার

০৩ এপ্রিল ২০১৯, ২৩:৩১ | আপডেট: ০৪ এপ্রিল ২০১৯, ১৫:২৭

রয়টার্স

রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান ওয়ান মালয়েশিয়া ডেভেলপমেন্ট বারহাদের (১এমডিবি) তহবিলের অর্থ আত্মসাৎ করে কেনা বিলাসবহুল প্রমোদতরীটি বেচে দেবে মালয়েশিয়া সরকার। রাষ্ট্রীয় কোম্পানির তহবিলের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে অভিযুক্ত জুয়া পরিচালনাকারী কোম্পানি জেনটিং মালয়েশিয়া বারহাদ ‘ইকুয়ানিমিটি’ নামক প্রমোদতরীটি কেনে। এটি ১২৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার (বাংলাদেশি টাকায় যার দাম ১ হাজার ৬১ কোটি ৪৭ লাখ ৪৪ হাজার) দামে বেচতে চায় মালয়েশিয়া সরকার।

৩০০ ফুট দৈর্ঘ্যের এই প্রমোদতরী কিনতে জেনটিং মালয়েশিয়ার প্রধান অংশীদার লোও তায়েক ঝো ২৫০ মিলিয়ন ডলার খরচ করেছিলেন বলে কর্তৃপক্ষ বলছে। এর ভেতরের দেয়ালগুলো অত্যন্ত দামি পাথর ও সোনার পাতে সজ্জিত। এর ভেতরে ৬০ ফুট লম্বা একটি সুইমিং পুলসহ রয়েছে মুভি থিয়েটার ও হেলিপ্যাড।

মালয়েশীয় কর্তৃপক্ষ নিলামে ১৩০ মিলিয়ন ডলার দাম ধরলেও এতো দামে কোনো ক্রেতা মেলেনি। তবে ১০০ মিলিয়ন ডলারের কিছু বেশি বা কাছাকাছি দাম দিয়ে কিনতে চান এমন বেশ কয়েকজন ক্রেতা রয়েছেন বলে জানা গেছে।

চুরি যাওয়া তহবিলের অর্থ উদ্ধারে প্রথম দফায় অভিযুক্ত কোম্পানিটির সম্পদ বিক্রির উদ্যোগ নিল মালয়েশিয়ার সরকার। অর্থলগ্নিকারী লোও তায়েক ঝো এবং তাঁর সহযোগীরা সরকারি তহবিলের অর্থ সরিয়ে অন্যান্য বহু সম্পত্তির সঙ্গে এই প্রমোদতরীটিও কিনেছিল। যুক্তরাষ্ট্র ও মালয়েশীয় সরকারের তদন্তকারী দল এমনটি জানিয়েছে।

অ্যাটর্নি জেনারেল টমি থমাস এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, এ মাসের শেষে কোম্পানিটি সরকারকে এপ্রিলের শেষ নাগাদ ১২৬ মিলিয়ন ডলার শোধ করবে। ৪.৪ মিলিয়ন ডলার যাবে নিলাম এজেন্টের ফি হিসেবে।

দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের প্রতিষ্ঠিত সংস্থা ১এমডিবি অন্তত ছয়টি দেশে অর্থপাচার ও দুর্নীতির অভিযোগে বিচারের মুখোমুখি হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ বলেছে, লোও ঝো এবং তাঁর সহযোগীরা ১এমডিবি থেকে প্রায় সাড়ে ৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলার সরিয়েছে। আর এই অর্থ দিয়ে সে মূল্যবান জমিজমাসহ, দামি দামি অলঙ্কার, পিকাসোর চিত্রকলা, ব্যক্তিগত উড়োজাহাজ ও প্রমোদতরী কিনেছেন।

গত বছর বিপুল ভোটে জিতে সরকার গঠনের পর প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ ১এমডিবির তহবিলের আত্মসাৎকৃত অর্থ উদ্ধারের কাজে হাত দেন। মালয়েশিয়া পুলিশ লোও ঝোর বিরুদ্ধে মামলা করেছে তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানাও রয়েছে। তবে ঝো কোথায় আছেন তা এখনো অজানা।

Advertisement