Beta

সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় নিরাপত্তা খাতে ৫৭০ মিলিয়ন ডলার বাড়াচ্ছে অস্ট্রেলিয়া

৩০ মার্চ ২০১৯, ১৯:৩৩

রয়টার্স
অস্ট্রেলীয় প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন। পুরোনো ছবি : রয়টার্স

২০১৯-২০ অর্থবছরে অস্ট্রেলিয়া তাদের জাতীয় বাজেটে জাতীয় নিরাপত্তা বাবদ ৫৭০ মিলিয়ন অস্ট্রেলীয় ডলার বাড়াচ্ছে, যা বাংলাদেশি টাকায় ৩ হাজার ৩৯৫ কোটি ৩৫ লাখ প্রায়। সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় ও গোয়েন্দা কার্যক্রমকে আরো গতিশীল করতে এ অর্থ ব্যয় করা হবে। শনিবার দেশটির দ্য উইকেন্ড অস্ট্রেলিয়া নামক একটি সংবাদপত্রের প্রতিবেদনে এমনটি জানানো হয়েছে।

অস্ট্রেলিয়ার গোয়েন্দা সংস্থা অস্ট্রেলিয়ান সিকিউরিটি ইন্টেলিজেন্স অর্গানাইজেশন ও অস্ট্রেলিয়ান ফেডারেল পুলিশের (এএফপি) ড্রোন-প্রতিরোধী প্রযুক্তিসহ নানা রকমের প্রকল্পে এই বাড়তি বরাদ্দ কাজে লাগানো হবে। সংবাদপত্রটি বলছে, এই অর্থের সিংহভাগ অর্থাৎ ৫১২ মিলিয়ন অস্ট্রেলীয় ডলার পাবে এএফপি। সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় পরবর্তী পাঁচ বছরে সাতটি ধাপে ও সন্দেহভাজন ব্যক্তিদের নজরদারি করতে আটটি ধাপে সংস্থাটিকে ওই অর্থ দেওয়া হবে।

আগামী মঙ্গলবার দেশটির প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন জাতীয় বাজেট ঘোষণা করবেন। মে মাসে জাতীয় নির্বাচন থাকায় ১ জুলাই থেকে শুরু হওয়া অর্থবছরের বাজেট আগাম ঘোষণা দেওয়া হবে।

গত ১৫ মার্চ নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে হামলায় ৫০ জন নিহতের ঘটনার পর সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় অস্ট্রেলিয়া কতটুকু প্রস্তুত তা নিয়ে আলোচনা ওঠে। শ্বেতাঙ্গ শ্রেষ্ঠত্বপ্রচারকারী অস্ট্রেলীয় ব্রেন্টন ট্যারান্টের বিচার চলছে। আগামী শুক্রবার তার আদালতে হাজিরা রয়েছে।

স্কট মরিসন এক টিভি বক্তৃতায় বলেছেন, ‘অস্ট্রেলিয়া সরকার তার নিরাপত্তার ফাঁক গলে সন্ত্রাসীদের সুযোগ করে দিচ্ছে বলে যারা সমালোচনা করে থাকেন, এই বাড়তি অর্থ তাদের জবাবে নয়। বরং এটা সন্ত্রাসবাদের ক্রমবর্ধমান হুমকি মোকাবিলার জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।’

Advertisement