Beta

নিউইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদন

খাসোগির জন্য ‘বুলেট’ ব্যবহার করতে চেয়েছিলেন সৌদি প্রিন্স

০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১২:২২ | আপডেট: ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১২:৩০

রয়টার্স

গেল বছর সৌদি সাংবাদিক জামাল খাসোগিকে হত্যা করা হয়। কে বা কারা খাসোগিকে হত্যা করেছে, এখন পর্যন্ত তার কোনো সুরাহা হয়নি।

তবে খাসোগি হত্যাকাণ্ডের আগে ২০১৭ সালে সৌদি প্রিন্স তাঁর এক সহকারীর সঙ্গে খাসোগির ব্যাপারে কথা বলেছিলেন। সহকারীর সঙ্গে প্রিন্সের এই কথোপকথন শুনে নড়েচড়ে বসেছে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থাগুলো।

গোয়েন্দা সংস্থার বরাত দিয়ে নিউইয়র্ক টাইমস জানায়, সৌদি প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান ওই কথোপকথনে তাঁর সহকারীকে বলেন, খাসোগি যদি সৌদি আরবে ফিরে না আসেন, আর সরকারের সমালোচনা বন্ধ না করেন, তাহলে তাঁর জন্য ‘একটি বুলেট’ ব্যবহার করা হবে।

প্রিন্স মোহাম্মদ ও তাঁর সহকারী তুর্কি আল-দাখিলের মধ্যে কথোপকথনটি হয়েছিল ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে। কারণ, ওই সময় সৌদি সরকারকে নিয়ে খাসোগির সমালোচনায় উদ্বিগ্ন ছিলেন সৌদি কর্মকর্তারা। ওই মাসেই খাসোগি ওয়াশিংটন পোস্টে তাঁর মতামতবিষয়ক কলাম লিখতে শুরু করেন। আর তখনই সৌদি কর্মকর্তারা খাসোগিকে ফিরে যাওয়ার জন্য আলোচনা করতে শুরু করেন।

ওই কথোপকথনে সৌদি প্রিন্স বলেছিলেন, যদি খাসোগিকে সৌদি আরবে ফিরিয়ে আনা না যায়, তাহলে তাঁকে জোরপূর্বক নিয়ে আসা হবে। যদি এর কোনো কিছুই কাজ না করে, তাহলে তাঁর জন্য ‘একটি বুলেট’ ব্যবহার করা হবে।

সৌদি প্রিন্সের এই মন্তব্য উঠে আসে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থার মাধ্যমে। তবে সংস্থাটি ‘বুলেট’ শব্দটিকে রূপক অর্থে দেখছে। তারা বলছে, এই কথোপকথনের অর্থ এই নয় যে খাসোগিকে গুলি করার কথা বলেছে সৌদি প্রিন্স। তবে খাসোগি সৌদি আরবে ফিরে না গেলে তাঁকে হত্যার উদ্দেশ্য প্রকাশ করেছেন তিনি। খাসোগিকে সৌদি প্রিন্সের আদেশেই হত্যা করা হয়েছে বলে মনে করছে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা।

তবে প্রিন্স এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত নয় বলে দাবি করছে সৌদি সরকার।

এদিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প খাসোগি হত্যায় জড়িতদের বের করতে উৎসাহ প্রকাশ করেছেন।

অন্যদিকে, খাসোগি হত্যার তদন্ত করতে জাতিসংঘের তদন্তকারীরা এক সপ্তাহের সফরে তুরস্কে যাবেন এবং ইস্তাম্বুলের প্রধান প্রসিকিউটরের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন।

খাসোগি হত্যার পেছনে দায়ীদের খুঁজে পেতে তদন্ত করছে গোয়েন্দা সংস্থাগুলো। এর মধ্যে সৌদি প্রিন্সের কথোপকথনটি বিশ্লেষণ করাও এই তদন্তের একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

Advertisement