Beta

কিমের সঙ্গে দ্বিতীয় বৈঠকের সময় জানালেন ট্রাম্প

০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১০:২২ | আপডেট: ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১১:১০

অনলাইন ডেস্ক

পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ নিয়ে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উনের সঙ্গে দ্বিতীয়বারের মতো শীর্ষ বৈঠকে বসার দিনক্ষণ ঘোষণা করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মঙ্গলবার স্টেট অব দি ইউনিয়নের বার্ষিক ভাষণে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, আগামী ২৭-২৮ ফেব্রুয়ারি ভিয়েতনামে এই বৈঠক হবে।

তবে সমাজতান্ত্রিক দেশটির কোন শহরে এ বৈঠক হবে, তা এখনো ঘোষণা করা হয়নি। ধারণা করা হচ্ছে, রাজধানীর হ্যানয়ে তা হতে পারে।

ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, ‘একটি নতুন শক্তিশালী কূটনীতির অংশ হিসেবে আমরা কোরীয় উপদ্বীপের ঐতিহাসিক শান্তি আলোচনার প্রক্রিয়া এগিয়ে নেব।’

‘আমাদের বন্দিরা বাড়িতে ফিরে এসেছে। পারমাণবিক অস্ত্রের পরীক্ষা বন্ধ রয়েছে। গত ১৫ মাসে তারা কোনো ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করেনি।’

ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, ‘যদি আমি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত না হতাম, তাহলে এই মুহূর্তে, আমার দৃষ্টিতে, উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে বড় রকমের যুদ্ধ বেঁধে যেত।’

‘যদিও এখনো আমাদের আরো অনেক কাজ করতে হবে, তবে কিম জং-উনের সঙ্গে আমার সম্পর্ক ভালো,’ যোগ করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।   

গত বছরের জুনে সিঙ্গাপুরে ডোনাল্ড ট্রাম্প ও কিম জং-উনের মধ্যে ঐতিহাসিক বৈঠকে উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণের বিষয়ে আলোচনায় সামান্য অগ্রগতি হয়েছে।

দক্ষিণ কোরিয়ার মধ্যস্থতায় এ নিয়ে দুই দেশের মধ্যে বেশ কয়েকবার আলোচনাও হয়েছে। উত্তর কোরিয়া ও দক্ষিণ কোরিয়ার দুই শীর্ষ নেতার মধ্যে বৈঠক হয়েছে।

পাশাপাশি উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উন সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কয়েকবার মিত্র দেশ চীন ভ্রমণ করে প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সঙ্গেও আলোচনা করেছেন।

সর্বশেষ গত ১৮ জানুয়ারি কিম জং-উনের ‘ডানহাত’ হিসেবে পরিচিত কিম ইয়ং চোল যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণ করেন। এই সফরটি ছিল পরমাণু কূটনীতিতে উত্তর কোরিয়ার প্রথম পদক্ষেপ। এ সময় চোল মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার আলোচক চোলের সাক্ষাতের পরই দুই শীর্ষ নেতার দ্বিতীয়বারের মতো বৈঠকের বিষয়টি নিশ্চিত হয়। সে সময় হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল, ফেব্রুয়ারির শেষে বৈঠকটি হতে পারে।

Advertisement