Beta

১৬টি কুকুরছানাকে পিটিয়ে হত্যা করল দুই মানুষ!

১৪ জানুয়ারি ২০১৯, ১৮:৩১

কলকাতা সংবাদদাতা

পিটিয়ে একে একে ১৬টি কুকুরছানা হত্যা করল দুই নারী। পশ্চিমবঙ্গে কলকাতায় গতকাল রোববার এক ঘটনা ঘটে।

গতকালই সন্ধ্যায় সরকারি হাসপাতাল নীলরতন সরকার মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (এনআরএস) চত্বর থেকে ১৬ টি কুকুরছানার মৃতদেহ উদ্ধার হয়। একসঙ্গে ১৬ টি কুকুরছানার মৃতদেহ উদ্ধার ঘিরে রীতিমতো শোরগোল পড়ে যায়। কিন্ত সেই ঘটনার ১২ ঘণ্টা পার হতে না হতেই কুকুরছানাগুলির মৃত্যু রহস্য ভেদ হল।

জানা যায়, রোববার দুপুরে এনআরএস হাসপাতালের নার্সিং হোস্টেলের পেছনে লাঠিসোটা দিয়ে কুকুরছানাগুলিকে বেধড়ক মারধর করা হয়। তারপরই প্রকাশ্যে আসে ২৬ সেকেন্ডের একটি ভিডিও।  সেই ভিডিওতে দেখা যায়,  এনআরএস চত্বরে দুই নারী লাঠি দিয়ে বেধড়ক মারধর করছে কুকুরছানাদের।  রক্তাক্ত অবস্থায় পাশে পড়ে রয়েছে ওই কুকুর ছানাগুলির  মা। আর্তনাদ করে প্রাণভিক্ষার আবেদন জানাচ্ছে কুকুরছানাগুলি। তবুও মোটা শক্ত লাঠির এলোপাথাড়ি মার পড়েছে ছোট্ট শরীরগুলির ওপর। অবশেষে হার মেনেছে তারা।  একে একে ১৬ টি ছোট্ট প্রাণ ঢলে পড়ে মৃত্যুর কোলে। ভিডিওর ভয়াবহতা নাড়িয়ে দেয় সবাইকে। 

এনআরএস হাসপাতালের ‘মেটারনিটি বিভাগে’র কাছে জঞ্জালস্তুপের বস্তা থেকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার হয় ১৬টি কুকুরছানা। প্রাথমিকভাবে অনুমান করা হয়, খাবারে বিষ মিশিয়ে তাদের হত্যা করা হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুইজন ব্যক্তি বস্তাটি সেখানে ফেলে যান। কিন্ত এই ঘটনার উত্তর খুঁজতে গিয়েই সামনে আসে সত্যিটা। ভাইরাল হওয়া ভিডিওয় দেখা যায়, হাসপাতালের নার্সিং হোস্টেলের পেছনে দুই নারী  লাঠি দিয়ে কুকুরছানাদের মারছেন। ভিডিওটি তোলা হয়েছে উলটোদিকের আর আহমেদ ডেন্টাল কলেজের হোস্টেলের বারান্দা থেকে। ভিডিওটি তুলেছেন ডেন্টাল কলেজের পড়ুয়ারাই। ডেন্টাল কলেজের পড়ুয়ারা জানিয়েছেন,  তাঁরা জানতে চেয়েছিলেন কেন ছোট কুকুরগুলোকে এভাবে মারা হচ্ছে?  তাতে নার্সিং পড়ুয়ারা যুক্তি দেখান যে, কুকুরছানাগুলো কামড়াতে পারে, এই আশঙ্কা থেকে মুক্ত হতে তাদের মেরে ফেলার সিদ্ধান্ত।  

এই কুকুরছানা  নিধনের তদন্তে এবার কমিটি গঠন করেছে এনআরএস। হাসপাতালের ডেপুটি সুপার দ্বৈপায়ন বিশ্বাসের নেতৃত্বে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখার পর,  ডেপুটি সুপার দ্বৈপায়ন বিশ্বাস স্বীকার করা নিয়েছেন, ঘটনাটি হাসপাতালের ভেতরেই ঘটেছে। সিসিটিভি ফুটেজটি আরও ভালো করে খতিয়ে দেখবে কমিটি। তাঁদের কাছেও এরইমধ্যে বেশ কয়েকটি ভিডিও ফুটেজ এসেছে। ঘটনায় নার্স হস্টেলের দুই আবাসিককে চিহ্নিত করা হয়েছে। দোষ প্রমাণিত হলে তাদের বহিষ্কার করা হবে। এদিকে এই ঘটনায় এরইমধ্যে মামলা করেছে এন্টালি থানার পুলিস। অজ্ঞাত পরিচয়দের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৪২৯ ধারায় মামলা রুজু করা হয়। দোষী প্রমাণিত হলে পাঁচ বছর পর্যন্ত জেল হতে পারে তাদের।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement