Beta

দীপাবলীতে দিল্লি ভয়ঙ্কর!

১০ নভেম্বর ২০১৮, ১৬:৩৮

কলকাতা সংবাদদাতা

বিশ্বজুড়ে দূষণের পরিমাপকারী সংস্থা এয়ার ভিস্যুয়ালের তালিকায় সবচেয়ে দূষিত শহরের তালিকায় ভারতের রাজধানী দিল্লি। ভারতের কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ পরিষদের হিসাব অনুযায়ী রাজধানী দিল্লির বাতাসে দূষণের মাত্রা তীব্র।

সরকারি সংস্থা দিল্লি দূষণ নিয়ন্ত্রণ কমিটির ওয়েবসাইটে প্রকাশিত, সম্প্রতি দীপাবলী উপলক্ষে গত বৃহস্পতিবার ভোরে দিল্লির বাতাসে বিপজ্জ্নক ভাসমান কণা ‘পার্টিকুলেট ম্যাটার’-এর পরিমাণ ছুঁয়েছিল প্রায় এক হাজার ৪০০-এর কাছাকাছি। এসব কণা নিঃশ্বাসের সঙ্গে ফুসফুসে গিয়ে রক্তস্রোতে মিশে বিপদ ডেকে আনে।

এয়ার ভিস্যুয়ালের মতে, দীপাবলি উপলক্ষে গত বুধবার রাতে নিয়ম ভেঙ্গে ভারতের রাজধানী দিল্লিতে যথেচ্ছ বাজি পোড়ানোর জেরে বৃহস্পতিবার বিকেলে বাতাসের গুণমানের সূচক পৌঁছে যায় ৯৮০ তে। এই সূচক ৫০ পয়েন্টে থাকলে তখন বলা যায়, বাতাসে দূষণের মাত্রা নিরাপদ। আর এই সূচক ৩০০ পয়েন্টে পৌঁছালেই তা বিপজ্জ্নক। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা নাগাদ দিল্লির বাতাসে এই সূচক নেমে আসে ৬২২ পয়েন্টে।

২০১৭ সালে দিল্লির বাতাসে গুণমানের সূচক ছুঁয়েছিল ১০০০ পয়েন্টে। যা চীনের বেইজিংয়ের থেকে ১০ গুণ বেশি ছিল। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ২০১৬ সালের তালিকায় বিশ্বের সব থেকে দুষিত শহরের ১০টি শহরই ছিল ভারতে।

ভারতের রাজধানী দিল্লির বায়ুদূষণের উৎস একাধিক। গাড়ির ধোঁয়া, দিল্লি লাগোয়া পাঞ্জাব ও হরিয়ানা রাজ্যের চাষের জমির ধান বা গম কাটার পর গোড়াগুলি পুড়িয়ে দেওয়া থেকে ধোঁয়া, রাস্তার ধুলো এবং কয়েক হাজার নির্মাণ ক্ষেত্র থেকে হাওয়ায় উড়ে আসা বালির কণা এসব কিছুই মিলেমিশে ধোঁয়াশার চাদরে ঢেকে ফেলে দিল্লিকে। এর উপর দীপাবলীর সময় দিল্লির বাতাসে মেশে বাজি পোড়ানোর ধোঁয়া। সব মিলিয়ে দূষিত বাতাসের পরিমণ্ডলে বসবাস করতে হয় দিল্লিবাসীকে। শ্বাস প্রশ্বাসের সঙ্গে এই দূষিত বাতাসের বিষ ফুসফুসে মিশে গিয়ে ছড়ায় ক্যানসার ও হৃদরোগ। পরিসংখ্যান মতে, বায়ুদূষণের ফলে প্রতিবছর ভারতে ১০ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement