Beta

টয়লেট ভেবে বিমানের দরজাই খুলছিলেন যাত্রী!

২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৬:০৬ | আপডেট: ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৬:১২

অনলাইন ডেস্ক
ভারতের দিল্লি-পাটনা আকাশপথে গো-এয়ারের উড়োজাহাজে চলন্ত অবস্থায় বিমানের বহির্গমন দরজা খোলার চেষ্টা করেন এক যাত্রী। ছবি : সংগৃহীত

ভাবুন তো, আকাশপথে ভ্রমণ করছেন আর কেউ হঠাৎ দ্রুতগতির ওই উড়োজাহাজের বহির্গমন দরজাটি খুলে দিল! কী রকম ভয়াবহ আতঙ্ক হবে আপনার! বলিউড-হলিউডের চলচ্চিত্রগুলোতে মাঝেমধ্যে এমন দৃশ্য দেখা যায় বটে। তাই বলে বাস্তবে এমন পরিস্থিতির মুখোমুখি হওয়া কি সাধারণ মানুষের পক্ষে সম্ভব? ভয়ে-আতঙ্কে তো মানুষের কলিজা শুকিয়ে যাবে, হাড় হিম হয়ে যাবে! অথচ সম্প্রতি অনেকটা সে রকমই ভীতিকর এক পরিস্থিতির শিকার হতে হয়েছে উড়োজাহাজভর্তি একদল যাত্রীকে। ঘটনাটি ঘটেছে পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের আকাশপথে।  

প্রথমবারের মতো উড়োজাহাজে ভ্রমণকারী নবিশ এক যাত্রী টয়লেট ভেবে ভুল করে উড়োজাহাজের মূল দরজা খোলার চেষ্টা করছিলেন। তাও আবার বিমানটি যখন আকাশে ছিল তখন।  আর তাতে করে অন্য সব যাত্রীর মধ্যে মুহূর্তেই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

গত শনিবার ভারতের দিল্লি-পাটনা আকাশপথে ‘গো-এয়ার’ এয়ারলাইন্সে  ওই ঘটনা ঘটে বলে জানায় ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টেলিগ্রাফ ইন্ডিয়া।

টেলিগ্রাফ ইন্ডিয়া জানায়, বেশ কয়েকজন যাত্রী দেখেন যে ২০ বছর বয়সী ওই যাত্রী নিজ আসন থেকে উঠে জি-৮ ১৪৯ উড়োজাহাজটির পেছন দিকে গিয়ে বহির্গমন দরজাটি খোলার চেষ্টা করছেন। যাত্রীরা ভয় পেয়ে চিৎকার করে তাঁকে থামাবার চেষ্টা করেন। কেবিনের কর্মীরা তড়িঘড়ি করে তাঁর দিকে ছুটে যান। পরে তাঁকে নিবৃত করা হয়। পরে সারা পথে তাঁকে নজরদারিতে রাখা হয়।

উড়োজাহাজটি পাটনা বিমানবন্দরে অবতরণের পর কর্মীরা ওই যুবককে সেন্ট্রাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল সিকিউরিটি ফোর্সের (সিআইএসএফ) কাছে হস্তান্তর করেন। তাৎক্ষণিকভাবে তাঁকে বিমানবন্দর পুলিশ হেফাজতে নেয়।

বিমানবন্দর থানার স্টেশন হাউস অফিসার (এসএইচও) মোহাম্মদ সানোয়ার খান টেলিগ্রাফকে বলেন, ‘আমরা পুরো বিষয়টি তদন্ত করেছি।’ ওই যুবক পাটনার কংকরবাগ এলাকার অধিবাসী। তিনি রাজস্থানের আজমিরে একটি প্রাইভেট ব্যাংকে চাকরি করেন। শনিবার সন্ধ্যায় তিনি দিল্লি-পাটনার বিমানে ওঠেন। সন্ধ্যা ৭টা থেকে ৮টার দিকে যুবক উড়োজাহাজের পেছন দিকের দরজা খোলার চেষ্টা করেন। তিনি বিমানে প্রথমবারের মতন ভ্রমণ করছিলেন।

টয়লেটের দরজা ভেবে ভুলবশত ওই যুবক বহির্গমন দরজাটি খোলার চেষ্টা করছিলেন বলে জানান এসএইচও। ওই যুবক সে সময়ে খুব চাপের মুখে টয়লেটের যাওয়ার তাড়া অনুভব করছিলেন বলেও জানান তিনি।

ওই ঘটনার তদন্ত শেষে এবং যুবকটির কথার সত্যতা পাওয়ায় লিখিত স্বীকারোক্তি নিয়ে রাতেই তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হয় বলে জানায় পুলিশ।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement