পশ্চিমবঙ্গের হুগলি নদীতে ডুবে গেল বাংলাদেশের জাহাজ

১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২৩:১১

পশ্চিমবঙ্গের হুগলি নদীতে ডুবে গেছে একটি বাংলাদেশি জাহাজ। বাংলাদেশের ‘এম বি সোম’ নামে ওই জাহাজটি পশ্চিমবঙ্গের বজবজ থেকে সিমেন্ট তৈরির কাঁচামাল ছাই নিয়ে বাংলাদেশের উদ্দেশে যাচ্ছিল।

জাহাজে নাবিকসহ ১০ জন বাংলাদেশের নাগরিক ছিলেন। সবাইকে উদ্ধার করেছে স্থানীয় বাসিন্দারা।

আজ মঙ্গলবার ভারতীয় সময় ভোর সাড়ে ৪টার দিকে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার মহিষাদল থানার হরিবল্লভপুর ও বাদুরের মাঝখানে হুগলি নদীতে ডুবতে শুরু করে ওই বাংলাদেশি জাহাজটি। জানা যায়, হুগলি নদীর অভ্যন্তরে ডুবে থাকা চরে ধাক্কা খেয়ে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে জাহাজটি। নদীতে জেগে থাকা চরে ধাক্কা খেয়ে জাহাজের ‘হুইল চেন’ কেটে যাওয়ায় বিকল হয়ে যায় ইঞ্জিন। এরপর জাহাজটি সজোরে ডুবন্ত চরে ধাক্কা খাওয়ায় নিচের দিকের অংশ ফেটে পানি ঢুকতে আরম্ভ করে ভেতরে। ফলে ক্রমশ পানিতে ডুবতে শুরু করে জাহাজটি। ওই সময় হুগলি নদীতে থাকা জেলেরা স্থানীয় পুলিশকে খবর দিয়ে ওই জাহাজে থাকা বাংলাদেশি নাগরিকদের উদ্ধারের কাজ শুরু করে।

অনেক চেষ্টা করে জাহাজটিকে নদীর পাড়ের দিকে আনার চেষ্টা করা হলেও ছাই বোঝাই থাকায় জাহাজটিকে সরানো যায়নি। জাহাজ থেকে ছাই নদীতে ফেলেও সরানো যায়নি জাহাজটিকে। ওই জাহাজে নাবিকসহ ১০ জন বাংলাদেশি নাগরিক ছিলেন। তাঁদের প্রত্যেককেই উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয় সুতাহাটা থানার পুলিশ কর্মকর্তা জলেশ্বর তেওয়ারি জানিয়েছেন, হুগলি নদীতে ওই সময় থাকা জেলেদের সাহায্যে জাহাজে থেকে ১০ জনকে নিরাপদে উদ্ধার করা হয়েছে। তবে জাহাজটির নিচের অংশ ফেটে যাওয়ায় তা পানিতে ডুবে যায়।