Beta

যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে হস্তক্ষেপ : রাশিয়ার ‘১২ চর জড়িত’

১৪ জুলাই ২০১৮, ১৫:৪৮

অনলাইন ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রের ২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হস্তক্ষেপের ঘটনায় রাশিয়ার ১২ চরকে অপরাধী হিসেবে চিহ্নিত করেছে বিচার মন্ত্রণালয়।

নির্বাচনে হস্তক্ষেপের ঘটনা তদন্তকারী বিশেষ কাউন্সেলর  রবার্ট মুলারের প্রতিবেদন অনুসারে রাশিয়ার ১২ নাগরিক নির্বাচনে দীর্ঘমেয়াদি তৎপরতা চালিয়ে প্রেসিডেন্টর প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের ডেমোক্র্যাটিক পার্টির ই-মেইল ও কম্পিউটার নেটওয়ার্ক হ্যাক করেছেন।

স্থানীয় সময় গতকাল শুক্রবার মার্কিন বিচার মন্ত্রণালয় ঘোষণা দেয়। আজ শনিবার সিনএনএন এ খবর প্রকাশ করে।

অভিযুক্ত ১২ ব্যক্তি রাশিয়ার সামরিক বিভাগের প্রধান গোয়েন্দা সংস্থা ‘জিআরইউ’র সদস্য বলে জানানো হয়েছে।

তদন্তে ২০১৬ সালের নির্বাচনে পরিকল্পিতভাবে হস্তক্ষেপের মাধ্যমে   ডেমোক্র্যাট প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের ই-মেইল হ্যাক ও ফাঁস করার ব্যাপারে আরো বিস্তারিত তথ্যের উল্লেখ আছে বলে জানা গেছে।

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যখন ব্রিটেনের উইন্ডসর রাজপ্রাসাদে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের সঙ্গে সাক্ষাৎ করছেন ঠিক সেই সময়ে এই ঘোষণা এলো।

এদিকে, রোববার ফিনল্যান্ডের রাজধানী হেলসিঙ্কিতে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে এক একান্ত বৈঠকে বসার কথা রয়েছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের। তার আগে মার্কিন বিচার মন্ত্রণালয়ের এই ঘোষণার প্রতিক্রিয়ায় সেই বৈঠক মোটেও বাতিল হবে না বলে শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন হোয়াইট হাউসের প্রেস সচিব সারা স্যান্ডার্স।

তদন্তে অনুসারে বিচার বিভাগ জানিয়েছে, সে সময় হিলারি ক্লিনটনের নির্বাচনী প্রচারণাকে লক্ষ্য করে ‘ডিসিএল লিকস’, গুসিফার ২.০ ও  আরো একটি তথ্য ফাঁসকারী ওয়েবসাইটের মাধ্যমে বিভিন্ন তথ্য ফাঁস করার উদ্দেশ্যে এসব হ্যাকিং করা হয়।

অভিযোগপত্রে কোনো মার্কিন নাগরিকের নাম নেই বলে এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল রড রোসেনস্টাইন। কিন্তু এই ষড়যন্ত্রের সময় রাশিয়ার ওই ১২ গোয়েন্দা যুক্তরাষ্ট্রের অনেক নাগরিকের সঙ্গে নানাভাবে যোগাযোগ করেন। তবে শেষমেশ এই হ্যাকিং নির্বাচনের ফলাফলে কোনো প্রভাব বিস্তার করতে পারেনি বলে জানান রোসেনস্টাইন।

এদিকে আরেক সংবাদ সম্মেলনে হোয়াইট হাউসের সহকারী প্রেস সচিব লিন্ডসে ওয়াল্টার্স রোসেনস্টাইনের কথার সূত্র ধরে সে সময় ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারণার কোনো তথ্য হ্যাক করার ব্যাপারে কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

লিন্ডসে ওয়াল্টার্স আরো বলেন, ‘আমরা এত দিন বলে আসছিলাম যে, এ রকম আপত্তিকর কোনো কিছুর সাথে আমাদের নির্বাচনী প্রচারণার অংশ এ রকম কোনো ব্যক্তি যুক্ত ছিলেন না এবং  এ রকম কোনো ষড়যন্ত্রের কোনো প্রভাব নেই নির্বাচনী ফলাফলের সাথে সেই বক্তব্যের সাথে রোসেনস্টাইনের বক্তব্য মিলে যায়।’

এই অভিযোগ দাখিলের প্রতিক্রিয়ায় ট্রাম্পের ব্যক্তিগত অ্যাটর্নি রুডি জুলিয়ানি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে লিখেছেন, ‘রাশিয়ার নাগরিকরা মোক্ষমভাবে ধরা খেল। এখন মুলারের তদন্তকাজ শেষে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে তাঁর নির্দোষ ঘোষণার সময়।’

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement