Beta

গুহা থেকে মা-বাবাকে চিঠিতে কী লিখেছে খুদে ফুটবলাররা

০৭ জুলাই ২০১৮, ১১:২১ | আপডেট: ০৮ জুলাই ২০১৮, ১০:৪৩

বিবিসি

থাইল্যান্ডের গুহায় দুই সপ্তাহ ধরে আটকে থাকা ১২ খুদে ফুটবলার তাদের মা-বাবাকে চিঠি লিখেছে। তারা বলেছে, ‘চিন্তা করো না, আমরা সবাই শক্তিশালী।’

হাতে লেখা চিঠিতে বিভিন্ন ধরনের খাবার পাঠানোরও অনুরোধ করেছে বালকরা।

শিক্ষকদের উদ্দেশে একটি চিঠিতে লেখা আছে, ‘স্যার, আমাদের খুব বেশি বাড়ির কাজ দিবেন না।’ পৃথক চিঠিতে তাদের কোচ মা-বাবাদের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন।

গত ২৩ জুন গুহায় অভিযানের সময় বন্যার পানিতে আটকে যায় ১২ ফুটবলার ও তাদের কোচ। এরপর ১০ দিন তাদের কোনো খোঁজ ছিল না। পরে সন্ধান মিললেও প্রতিকূল আবহাওয়ার কারণে তাদের উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

চিঠিতে ২৫ বছর বয়সী কোচ এক্কাপল চানতওং বালকদের মা-বাবাদের উদ্দেশে বলেন, ‘প্রিয় সব মা-বাবা, এখন দলের সবাই ভালো আছে। উদ্ধারকারী দল আমাদের ভালোভাবেই খেয়াল রাখছে।’

কোচ লেখেন, ‘আমি প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি, তাদের সর্বোচ্চ খেয়াল রাখব আমি। আমার সব বালকের মা-বাবাদের কাছে ক্ষমা চাই।’

এই প্রথম গুহায় আটকেপড়া দলটির সঙ্গে তাদের পরিবারের যোগাযোগ হলো। এর আগে গুহা থেকে একটি ফোন সংযোগ স্থাপনের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছে কর্তৃপক্ষ।

গত সোমবার ব্রিটিশ উদ্ধারকারী ডুবুরিরা গুহায় আটকেপড়া অবস্থায় দলটিকে খুঁজে পায়। গুহামুখ থেকে প্রায় চার কিলোমিটার ভেতরে শিলাখণ্ডের ওপর তাদের অবস্থান।

থাইল্যান্ডের সামরিক বাহিনী ও আন্তর্জাতিক ডুবুরিরা গুহায় খাদ্য, অক্সিজেন ও ওষুধপথ্য পৌঁছে দেওয়ার কাজ করেছে। যেখানে ফুটবল দল আটকে আছে সেখানে অক্সিজেনের মাত্রা কমে যাচ্ছে। এ নিয়ে উদ্ধারকারীরা উদ্বিগ্ন।

তবে কর্তৃপক্ষ বলছে, গুহায় সাফল্যের সঙ্গে বাতাসের পথ স্থাপন করা হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার থাই নৌবাহিনীর সাবেক একজন ডুবুরি গুহা থেকে ওঠার পথে মারা যান।

আগামীকাল রোববার ভারি বৃষ্টিপাতের আশঙ্কা করছে আবহাওয়া বিভাগ। এজন্য সাময়িকভাবে উদ্ধারকাজ স্থগিত করা হয়েছে।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement