Beta

মিয়ানমারে সামরিক প্রশিক্ষণ বন্ধের তাগিদ যুক্তরাজ্যের এমপিদের

০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১৩:৩১

দি ইনডিপেনডেন্ট
মিয়ানমারের সেনারা যাতে যুক্তরাজ্যের প্রশিক্ষণ না পায়, সে লক্ষ্যে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসনকে চিঠি লিখেছেন এমপিরা। ছবি : রয়টার্স

রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর নির্যাতনের পরিপ্রেক্ষিতে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর সদস্যদের প্রশিক্ষণ দেওয়া বন্ধ করতে যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসনকে তাগিদ দিয়েছেন দেশটির ১৫৭ আইনপ্রণেতা (এমপি) ও তাঁদের সহযোগীরা।

বিরোধী দল লেবার পার্টির এমপি ও মিয়ানমারে গণতন্ত্রায়নে সর্বদলীয় সংসদীয় কমিটির সহসভাপতি রুশনারা আলীর নেতৃত্বে এমপিরা এক চিঠিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে এই তাগিদ দেন।

ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইতিমধ্যে মিয়ানমারের কার্যত নেতা অং সান সু চিকে হুঁশিয়ার করে দিয়ে বলেছেন, সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের ওপর  আচরণ মিয়ানমারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করছে।

যুক্তরাজ্যের এমপিরা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এই বিবৃতিকে স্বাগত জানিয়েছেন। তবে তাঁদের দাবি, ব্রিটিশ সরকারকে অবশ্যই মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীকে দেওয়া প্রশিক্ষণ বন্ধ করতে হবে।  এমপিরা প্রশিক্ষণ বাবদ বছরে তিন লাখ পাঁচ হাজার পাউন্ড ব্যয় ও মিয়ানমারের সেনাদের বিরুদ্ধে শিরশ্ছেদ, ধর্ষণ ও শিশুদের ওপর গুলি চালানোর অভিযোগকে সামনে তুলে ধরেছেন।  

গত বছরের নভেম্বরে তৎকালীন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মাইক পেনিং বলেছিলেন, যুক্তরাজ্যের প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত মিয়ানমারের কোনো সেনা রোহিঙ্গা মুসলিমদের বিরুদ্ধে অভিযানে যুক্ত কি না। তিনি আরো বলেন, যুক্তরাজ্যের প্রশিক্ষণে মানবাধিকার পরিস্থিতির কী ধরনের উন্নতি হয়েছে, তার মূল্যায়নও করা হয়নি।

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সহিংসতার শিকার হয়ে দুই লাখ ৭০ হাজার রোহিঙ্গা মুসলিম বাংলাদেশে এসেছে বলে জাতিসংঘের বিবৃতির পর ব্রিটিশ এমপিরা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর  কাছে চিঠিটি পাঠিয়েছে।

কয়েকটি পুলিশ পোস্টে রোহিঙ্গা বিদ্রোহীদের আক্রমণের পর মিয়ানমারের সেনারা রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা অধ্যুষিত গ্রামগুলোতে অভিযান চালায়। সেখানে বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে অভিযানের নামে সেনাবাহিনী জাতিগত নির্মূল চালাচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement