ধস নেমেছে হুয়াওয়ে মোবাইল ফোনের বাজারে

১৭ জুন ২০১৯, ১৯:২৯

মার্কিন নিষেধাজ্ঞা আরোপের ফলে বিপদের মুখে পড়েছে চীনা টেলিকম কোম্পানি হুয়াওয়ে। আন্তর্জাতিক বাজারে তাদের মোবাইল ফোনের বিক্রি কমে গেছে অন্তত ৪০ শতাংশ; এ কারণে তারা তাদের উৎপাদনও কমিয়ে দিচ্ছে।

হুয়াওয়ের প্রতিষ্ঠাতা রেন ঝেংফেই তার প্রতিষ্ঠানকে তুলনা করেছেন একটি খারাপ হয়ে যাওয়া বিমানের সাথে। তিনি বলছেন, মার্কিন সরকার যে হুয়াওয়ে কোম্পানির বিরুদ্ধে এত কঠোর পদক্ষেপ নেবে তা তারা আন্দাজ করতে পারেননি।

হুয়াওয়ে এখন বিশ্বের সবচেয়ে বড় টেলিকম যন্ত্রপাতি নির্মাতা, এবং স্মার্টফোন নির্মাতা হিসেবে বিশ্বে তাদের স্থান দ্বিতীয়।

সংবাদমাধ্যম বিবিসির খবরে বলা হয়, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নতুন আইনে বলা হয়েছে, কোনো আমেরিকান কোম্পানি বা আমেরিকান-প্রযুক্তি ব্যবহার করে এমন কোনো কোম্পানির জন্য হুয়াওয়ের সাথে ব্যবসা করা নিষিদ্ধ।

এমন কঠোর আইনের ফলে গত এক মাসে হুয়াওয়ের মোবাইল হ্যান্ডসেট বিক্রি ৪০ শতাংশ কমে গেছে।

রেন ঝেংফেই বলছেন, তারা তাদের উৎপাদন তিন হাজার কোটি ডলার কমিয়ে দেবেন।

বিশ্ববাজারে সবচেয়ে বেশি মোবাইল হ্যান্ডসেট বিক্রি হয় স্যামসাংয়ের । তার পরই আছে হুয়াওয়ে এবং অ্যাপলের আইফোন আছে তৃতীয় স্থানে। পৃথিবীর সব মহাদেশেই তাদের বাজার বিকশিত হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্র যুক্তি দিচ্ছে যে - হুয়াওয়ে কোম্পানির যন্ত্রপাতিকে চীনের কর্তৃপক্ষ নজরদারির জন্য ব্যবহার করতে পারে, যদিও হুয়াওয়ে এমন কোনো আশংকার কথা অস্বীকার করছে।

কিন্তু মার্কিন নিষেধাজ্ঞার জের ধরে ইতিমধ্যেই বিভিন্ন দেশ ও আন্তর্জাতিক কোম্পানি হুয়াওয়ের ফাইভ-জি প্রযুক্তি ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে। গুগল এরই মধ্যে জানিয়েছে, তাদের কিছু অ্যাপের আপডেট আর হুয়াওয়ে মোবাইল ফোনে পাওয়া যাবে না।

জাপানের দুটি কোম্পানি বলেছে, তারা হুয়াওয়ের হ্যান্ডসেট বিক্রি করবে না।

হুয়াওয়ে অবশ্য বলছে, চীনের বাজারে তাদের বিক্রি অক্ষুণ্ণ আছে এবং ২০২১ সাল নাগাদ তাদের ব্যবসা আবার চাঙ্গা হবে। তা ছাড়া তাদের গবেষণা ও উন্নয়নের ক্ষেত্রে বাজেটে কোনো কাটছাঁট করা হচ্ছে না।