Beta

বৃষ্টি আশা বাড়াচ্ছে বাংলাদেশের

০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৩:২৩

স্পোর্টস ডেস্ক

দুপুর ১২টার পরপরই বৃষ্টি থেমে গেছে। মাঠ শুকানোর কাজে দেরি করেননি গ্রাউন্ডসম্যানরা। দ্রুত পানি নিষ্কাশনের পর অবশেষে দুপুর ১টায় মাঠে গড়ায় বাংলাদেশ-আফগানিস্তানের মধ্যকার টেস্টের পঞ্চম দিন। কিন্তু সেটাও বেশিক্ষণ স্থায়ী হলো না। মাঠে নেমে টাইগাররা সাত রান যোগ করতেই আবার বৃষ্টি শুরু হয়। ফলে ছাতা মাথায় মাঠ ছাড়তে হয় ক্রিকেটারদের।

এরই মধ্যে বৃষ্টিতে ভেসে গেছে প্রথম সেশন। তাতে লাঞ্চের পর থেকে শুরু করে অন্তত ৬৩ ওভার খেলা চালানোর চেষ্টা করছেন ম্যাচ আম্পায়াররা।

চট্টগ্রাম টেস্টে জয়ের দ্বারপ্রান্তে দাঁড়িয়ে আছে আফগানিস্তান। কিন্তু সফরকারীদের জয়ের উল্লাসে বৃষ্টি বাধা হয়ে আছে। বৃষ্টির কারণে পঞ্চম দিনের প্রথম সেশন মাঠে গড়ায়নি। যার কারণে নির্ধারিত সময়েই লাঞ্চ বিরতিতে গেছে বাংলাদেশ-আফগানিস্তান।

বেলা ১১টার দিকে বৃষ্টি পুরোপুরি থেমে যায়। মাঠ শুকানোর কাজও শুরু করা হয়। মাঠ পর্যবেক্ষণ করেন রিজার্ভ আম্পায়ার শরফুদ্দৌলা। তখনই আবার বৃষ্টি শুরু হয়। যার কারণে আবারও উইকেট কাভারে ঢেকে রাখা হয়।

বাংলাদেশের সামনে আফগানিস্তানের পাহাড়সম টার্গেট, যা টপকাতে অবিশ্বাস্য কিছু করতে হবে স্বাগতিকদের। যদিও তেমন কোনো সম্ভাবনা আছে বলে মনে হচ্ছে না। এমন পরিস্থিতিতে বৃষ্টিই পারে আফগানদের বিপক্ষে হার ঠেকাতে। শেষ পর্যন্ত তাই হয় কি না, তা সময়ই বলে দেবে। তবে সে সম্ভাবনা কিছুটা হলেও আছে। চট্টগ্রাম টেস্টের চতুর্থ দিন কেটেছে মেঘ-বৃষ্টির লুকোচুরিতে। আজ সোমবার শেষ দিনের শুরুটাও বৃষ্টির দখলে।

গতকাল রোববার রাত থেকেই শুরু হয়েছে প্রবল বৃষ্টি। আজ সকালেও বৃষ্টি চলছে। চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের উইকেট ও চারপাশ ঢেকে রাখা হয়েছে। মাঠের নানা জায়গায় পানি জমে আছে। আকাশ ঘন কালো মেঘে ঢাকা, বৃষ্টি থামার সম্ভাবনা কম।

আফগানিস্তানের দেওয়া ৩৯৮ রানের লক্ষ্যে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ছয় উইকেটে ১৩৬ রান নিয়ে চতুর্থ দিন শেষ করে বাংলাদেশ। দিন শেষে উইকেটে সাকিব আল হাসান ৩৯ ও সৌম্য সরকার কোনো রান না নিয়ে অপরাজিত ছিলেন। ২৬২ রানে পিছিয়ে বাংলাদেশ। হাতে বাকি ছিল চার উইকেট।

Advertisement