Beta

লর্ডসে অনন্য মুস্তাফিজ, টাইগারদের টার্গেট ৩১৬

০৫ জুলাই ২০১৯, ১৫:১৮ | আপডেট: ০৬ জুলাই ২০১৯, ০০:৪৩

স্পোর্টস ডেস্ক

২৫ ওভার পর্যন্ত ধীরেসুস্থে ব্যাট করছিলেন বাবর আজম ও ইমাম-উল হক। এরপর চড়াও হতে থাকেন মোসাদ্দেক-মুস্তাফিজ-সাইফউদ্দিনদের ওপর। তার সঙ্গে যোগ হয়েছে বাংলাদেশের বাজে ফিল্ডিং। জঘন্য ফিল্ডিংয়ের সঙ্গে আছে ক্যাচ মিসের মহড়া। বাবরের দুই ক্যাচ মিস করেছেন মোসাদ্দেক ও মুশফিক। চড়াও হওয়া বাবর আজমকে শতকের আগেই ফেরানো গেছে ঠিকই, কিন্তু রানরেট ততক্ষণে বেশ ওপরে। শতক পেলেন ইমাম। মনে হচ্ছিল রান চলে যা্বে ৩৫০ এরও বেশি। কিন্তু লাগাম টেনে ধরলেন মুস্তাফিজ।

ভারত যেমন পথ হারিয়েছিল মুস্তাফিজে, ঠিক পাকিস্তানের একই অবস্থা হলো। ৫০ ওভার শেষে পাকিস্তানের সংগ্রহ হলো ৯ উইকেটে ৩১৫ রান। মুস্তাফিজ পেলেন পাঁচ উইকেট। বিশ্বকাপে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে টানা দ্বিতীয়বার ৫ উইকেট নেওয়ার কীর্তি গড়লেন মুস্তাফিজ।

রানটা ৩০০ এর ভেতরেই রাখা যেত। ইমাদ ওয়াসিম ২৬ বলে ৪৩ রানের একটি ঝড়ো ইনিংস খেলেন শেষ দিকে। মুস্তাফিজ ১০ ওভারে ৭৫ রান দেন। তবে ভালো বল করেন মিরাজও। ১০ ওভারে ৩০ রান দিয়ে নিয়েছেন একটি উইকেট। সাইফউদ্দিন ৯ ওভারে ৭৭ রান দিয়ে নিয়েছেন ৩ উইকেট।

চার রানের জন্য বাবর আজম শতক না পেলেও ইমাম ঠিকই শতক পূরণ করে প্যাভিলিয়নে ফিরেছেন। ঠিক ১০০ বলে ১০০ করে হিট উইকেট হয়েছেন তিনি।

ক্রিকেটের তীর্থস্থান লর্ডসে মুখোমুখি হয়েছে এশিয়ার দুই প্রতিদ্বন্দ্বী। আগের ম্যাচের খেলা বাংলাদেশ একাদশে এসেছে দুটি পরিবর্তন। দলে ফিরেছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ও মেহেদী হাসান মিরাজ।

আজকের ম্যাচ দিয়েই শেষ হচ্ছে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ মিশন। অন্যদিকে নিউজিল্যান্ডকে টপকে সেমিফাইনালে যেতে পাকিস্তানকে আজ অসম্ভবকে সম্ভব করতে হবে। তিনশ’র বেশি রানে বাংলাদেশকে হারাতে হবে সরফরাজ বাহিনীকে।

সাম্প্রতিক পরিসংখ্যানে বাংলাদেশ এগিয়ে থাকলেও অতীত নিয়ে মোটেও ভাবতে চান না পাকিস্তানের অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। সেমিফাইনালে যাওয়াটা এখন অসম্ভব সমীকরণ হলেও শেষ ম্যাচ জিতে ২০১৯ বিশ্বকাপ থেকে ফিরতে চায় ’৯২-এর বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

আজকের ম্যাচের মধ্য দিয়ে শেষবারের মতো বিশ্বকাপে খেলছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। ২০০৩ সালে দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম বিশ্বকাপ খেলার পর থেকে (মাঝে ২০১১ বিশ্বকাপ বাদে) এ বছরের ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ পর্যন্ত ২৪টি বিশ্বকাপ ম্যাচ খেলেছেন ৩৫ বছর বয়সী টাইগার অধিনায়ক।

বাংলাদেশের প্রধান কোচ স্টিভ রোডস জানিয়েছেন, বিশ্বকাপে মাশরাফির বিদায়ী ম্যাচে আবেগকে নিয়ন্ত্রণ করে জয় পেতে মরিয়া বাংলাদেশ। পয়েন্ট তালিকার পাঁচ নম্বরে থেকে বিশ্বকাপ শেষ করার লক্ষ্য টাইগারদের।

বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত একবারই মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ ও পাকিস্তান। দুই দশক আগের সে ম্যাচে টস জিতে ফিল্ডিং নিয়েছিল পাকিস্তান। ১৯৯৯ সালের সে প্রথম দেখায় খালেদ মাহমুদের অসাধারণ বোলিংয়ে পাকিস্তানকে ৬২ রানে হারায় টাইগাররা।

আজকের ম্যাচটি জিতে মাশরাফিকে বিশ্বকাপের বিদায়ী উপহার দিতে চাইবেন তাঁর সতীর্থরা।

Advertisement