Beta

‘বাংলাদেশকে এখন সমীহ করে বড় দলগুলোও’

১৩ জুন ২০১৯, ২২:৩২

স্পোর্টস ডেস্ক

ক্রিকেট বিশ্বে বড় দলগুলোর বিপক্ষে লড়াই করার সামর্থ্য বাংলাদেশের আছে বলে মনে করেন টাইগার কোচ স্টিভ রোডস। ক্রিকেট বিষয়ক সংবাদমাধ্যম ক্রিকইনফোকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রোডস বলেন, ‘আপনি যদি এই বিশ্বকাপের লো দলগুলোর দিকে তাকান, দেখবেন কিছু বড় দলের বিপক্ষে লড়াই করেছি আমরা। তবে এটা ঠিক, হয়তো কিছু ক্ষেত্রে আমরা পিছিয়ে আছি। আমাদের কিছু ক্রিকেটার আছে যারা চেষ্টা করছে নিজেদের উন্নতির জন্য। আমাদের সেই সক্ষমতাও রয়েছে। সাকিব দুর্দান্ত পারফর্ম করছে।’

রোডস বাংলাদেশ দলের কোচের দায়িত্ব নেন ২০১৮ সালের জুনে। বিশ্বকাপের কথা মাথায় রেখে রোডসকে জাতীয় দলের দায়িত্ব দেয় বিসিবি। রোডসের অধীনে বাংলাদেশের ক্রিকেটের উন্নতিও বেশ চোখে পড়ার মতো। এখন পর্যন্ত রোডসের অধীনে ২৫টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলে ১৫টিতে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। এ ছাড়া প্রথম কোনো টুর্নামেন্টের শিরোপাও জিতেছে টাইগাররা। বিশ্বকাপের আগে আয়ারল্যান্ডের মাটিতে ত্রিদেশীয় সিরিজের শিরোপা জেতেন মাশরাফিরা।

বাংলাদেশ দলে মাশরাফি বিন মুর্তজা, সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহর মতো খেলোয়াড় আছেন। এই পঞ্চপাণ্ডবের ধারাবাহিকতায় লাল-সবুজের দল দারুণ সব সাফল্য পাচ্ছে। তবে এই পাঁচজনের বাইরেও আরো কয়েকজনকে তৈরি করছেন রোডস। এরমধ্যে আছেন সৌম্য সরকার, লিটন দাস, সাব্বির রহমান, মুস্তাফিজুর রহমান, মেহেদী হাসান মিরাজ ও মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের মতো খেলোয়াড়। এ ব্যাপারে রোডস বলেন, ‘প্রধান কোচ হিসেবে প্রশিক্ষণের সময় পরিকল্পনা অনুযায়ী মাঠে ক্রিকেটারদের মধ্যে তাদের দায়িত্ব বুঝিয়ে দিয়েছি। কীভাবে তারা সিদ্ধান্ত নিবে এবং নিজেরাই শিক্ষা নিয়ে নিজেদের তৈরি করবে। আর এ জন্যই তরুণ ক্রিকেটাররা এখন মাঠে ভালো পারফর্ম করছে। তাই সবাই আমাদের দলকে সমীহ করছে।’

তরুণদের নিয়ে রোডস বলেন, ‘সৌম্য ছন্দে আছে। লিটন ভালো খেলছে, যদিও এখনো খেলার সুযোগ পায়নি। সাব্বির রহমান নিউজিল্যান্ডে সেঞ্চুরি করেছে, মিরাজ শেষ দুই-তিন বছর ভালো বল করছে। মুস্তাফিজ-সাইফউদ্দিনও ভালো পারফর্ম করছে।’

চলমান বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে দারুণ শুরু করে বাংলাদেশ। এরপর নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে দারুণ লড়াই করেও হেরে যায় টাইগাররা। কিন্তু ইংল্যান্ডের ভালো খেলতে পারেনি। এরপর বৃষ্টির কারণে শ্রীলঙ্কার সঙ্গে পয়েন্ট ভাগাভাগি করেন রোডসের শিষ্যরা। এতে রোডস নিজেও হতাশ।

Advertisement