ফাইনালের আগে যা বললেন মাশরাফি

১৭ মে ২০১৯, ১৩:০৪

স্পোর্টস ডেস্ক

আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে আজ ওয়েস্ট ইন্ডিজের মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ সময় বিকেল পৌনে ৪টায় ডাবলিনের ম্যালাহাইডে শুরু হবে ম্যাচটি। নিজেদের ক্রিকেট ইতিহাসে এর আগে মোট ছয়টি টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলেছে বাংলাদেশ দল। কিন্তু চারটি ওয়ানডে এবং দুটি টি-টোয়েন্টি ফাইনালের প্রতিটিতেই পরাজয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে টাইগাররা। আজ সপ্তম ফাইনালে নামার আগে তাই ‘ফাইনাল’ শব্দটিকেই দূরে সরিয়ে রাখার পক্ষপাতী দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ফাইনালটাকে অন্য আর দশটা ম্যাচের মতো করে খেলতে চায় দল। 

শুক্রবারের ফাইনাল নিয়ে গতকাল দুপুরে আনুষ্ঠানিক টিম মিটিং করে বাংলাদেশ দল। মিটিং শেষে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হন অধিনায়ক মাশরাফি। নিজেদের এর আগের ফাইনাল ম্যাচগুলোর ইতিহাস এবং আজকের ম্যাচ নিয়ে কিছুটা সতর্ক প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে টাইগার অধিনায়ক বলেন, ‘আমরা প্রতিটি ম্যাচই খেলতে নামি জয়ের জন্য। তবে ফাইনালে তো বাড়তি প্রত্যাশা থাকেই। এর আগে আমরা কখনও ফাইনাল জিতিনি, সেই ব্যাপারটাও মাথায় আছে। তাই এই ফাইনাল নিয়ে বাড়তি আলোচনা থেকে দূরে থাকার চেষ্টা করছি।’  

এবারই প্রথম ফাইনালে ফেভারিট হিসেবে মাঠে নামছে বাংলাদেশ। দেশবাসী এবং ক্রিকেটভক্তদের প্রত্যাশাও অনেক। তবে অধিনায়ক মাশরাফি অন্য কিছু চিন্তা না করে ফোকাসটা মাঠের ক্রিকেটের দিকেই রাখতে চান। ফাইনালের বাড়তি চাপ নিতে চান না জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আগের ম্যাচগুলো যেভাবে খেলেছি, ফাইনালটাও সেভাবেই খেলার পরিকল্পনা করছি। খুব বেশি চিন্তা করে বা অনেক পরিকল্পনা করে বাড়তি চাপ নেওয়ার দরকার আছে বলে মনে হয় না। এজন্য আমরা টিম মিটিংয়ে ফাইনাল ম্যাচ ধরে আলাদা আলোচনা করিনি। আর দশটা ম্যাচের মতো যেভাবে মিটিং করি, সেভাবেই করেছি। ফাইনাল খেলছি, সেই উত্তাপ থেকে ছেলেদের আসলে যতটা দূরে রাখা যায়, চেষ্টা করছি।’

গুরুত্বপূর্ণ এই ফাইনালে অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের খেলা নিয়ে সংশয় রয়েছে। বুধবার আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচে ব্যাটিংয়ের সময় চোট পেয়ে মাঠ ছেড়ে যান সাকিব। গুরুতর কিছু না হলেও কিছুটা ব্যথা আছে সাকিবের। তাই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ফাইনালে খেলবেন কিনা, সেই সিদ্ধান্ত সাকিবের ওপরই ছেড়ে দিয়েছে টিম ম্যানেজমেন্ট। আজ সকালে সর্বশেষ অবস্থা দেখেই তাঁর খেলা অথবা না খেলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। 

তবে বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার না থাকলেও ফাইনাল জয়ের সামর্থ্য আছে দলের, জানান অধিনায়ক মাশরাফি। টাইগার দলপতি বলেন, ‘সাকিব বাংলাদেশের জন্য কী করে বা কত বড় ক্রিকেটার, সেটা সবাই জানে। সাকিব যদি না খেলতে পারে, ওকে মিস করা আমাদের জন্য ভালো খবর অবশ্যই নয়। তবে পাশাপাশি এটাও বলব, সাকিবকে ছাড়াও এই ম্যাচ জয়ের সামর্থ্য আমাদের আছে। এজন্যই সেরা ১৫ জনকে আনা হয়।’