Beta

অধরা শিরোপা কি ধরা দেবে এবার?

১৭ মে ২০১৯, ১০:৩৫

স্পোর্টস ডেস্ক

২০০৯ সাল থেকে ২০১৯—প্রায় ১০ বছর সময়কাল। এ সময়ে অনেকদূর এগিয়ে গেছে বাংলাদেশের ক্রিকেট। ১০ বছর আগে জয় আসত কিছুটা অনিয়মিতভাবে। তবে ১০ বছরের ব্যবধানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ক্রমেই পরাশক্তি হওয়ার পথে অনেকটা এগিয়ে গেছে বাংলাদেশ দল। বড় দলগুলোর বিপক্ষে নিয়মিত জয় আসছে। ক্রিকেটের বড় পরাশক্তিরাও এখন টাইগারদের বিপক্ষে নিজেদের সেরা দল এবং সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নিয়ে নামতে বাধ্য হয়। বিগত বছরগুলোতে ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকা, পাকিস্তানের মতো দলের বিপক্ষে সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ। অস্ট্রেলিয়ায় ২০১৫ বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল এবং ২০১৭ সালে ইংল্যান্ডের মাটিতে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির সেমিফাইনাল খেলেছে বাংলাদেশ দল। কিন্তু একটি অপূর্ণতা বারবার তাড়িয়ে বেড়াচ্ছে মাশরাফির দলকে। এখন পর্যন্ত ছয়টি টুর্নামেন্টের ফাইনালে উঠলেও একবারের জন্যও শিরোপা ছুঁয়ে দেখা হয়নি বাংলাদেশ দলের।

আজ আবার সুযোগ এসেছে বাংলাদেশের সামনে। আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মোকাবিলা করবে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল। ডাবলিনের ম্যালাহাইড ক্রিকেট গ্রাউন্ডে বাংলাদেশ সময় বিকেল পৌনে ৪টায় শুরু হবে ম্যাচটি। ফাইনালের আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পাশাপাশি বাংলাদেশের আরেক প্রতিপক্ষ ইতিহাস। এর আগে চারটি ওয়ানডে ও দুটি টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের ফাইনালে উঠলেও বারবার ব্যর্থতায় নুয়ে পড়তে হয়েছে দলকে। তবে এবার ফাইনালে আর কোনো ভুল করতে চায় না বাংলাদেশ দল। জয়ের ব্যাপারে দারুণ আত্মবিশ্বাসী দলের প্রত্যেক ক্রিকেটার।

আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় এই সিরিজে নিজেদের প্রথম ম্যাচ থেকে ব্যাটে-বলে দুর্দান্ত ক্রিকেট খেলেছে বাংলাদেশ। সিরিজে এর আগে দুবারের মোকাবিলায় দুবারই ক্যারিবীয়দের অনায়াসে হারিয়েছে টাইগাররা। প্রথম ম্যাচে দুর্দান্ত বোলিং করে ক্যারিবীয়দের ২৬১ রানে আটকে রাখে বাংলাদেশ। এরপর দুর্দান্ত ব্যাটিং প্রদর্শনী করে পাঁচ ওভার বাকি থাকতেই ৮ উইকেটে ম্যাচ জিতে নেয় বাংলাদেশ। পরবর্তী ম্যাচে ক্যারিবীয়দের করা ২৪৭ রান ৫ উইকেট হাতে রেখেই টপকে যায় মাশরাফির দল। গ্রুপপর্বের শেষ ম্যাচে স্বাগতিক আয়ারল্যান্ড ২৯২ রানের বড় স্কোর গড়লেও সাত ওভার হাতে থাকতেই ৬ উইকেটে ম্যাচ জিতে নেয় টাইগাররা।

ফাইনাল ম্যাচের আগে বাংলাদেশের একমাত্র দুশ্চিন্তার নাম সাকিব আল হাসান। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচে কোমরে ব্যথা পান বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার। গুরুতর কিছু না হলেও সাকিবকে নিয়ে ঝুঁকি নিতে চায় না বাংলাদেশ দল। আজ সকালে সর্বশেষ পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে সাকিবের মাঠে নামার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। ম্যালাহাইডে প্রথমে ব্যাট করা দলের গড় রান ২৫৯। তবে এই সিরিজের উইকেট আরো বেশি রানের পূর্বাভাস দিচ্ছে। অন্যদিকে, আজকের ম্যাচে আবহাওয়াও খেলার জন্য উপযোগী থাকবে বলে জানিয়েছে স্থানীয় আবহাওয়া অধিদপ্তর।

এর আগে চারটি ওয়ানডে ও দুটি টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের ফাইনালে উঠেছিল বাংলাদেশ দল। কিন্তু বারবার স্বপ্নভঙ্গের বেদনায় পুড়তে হয়েছে দলকে। তবে এবারের ফাইনালকে ‘লাকি সেভেন’ আখ্যা দিয়েছে ক্রিকেটভক্তরা। তাই দলে ফর্ম আর আত্মবিশ্বাস মিলিয়ে সপ্তম ফাইনালে সুযোগ হাতছাড়া করতে চায় না দল। ফাইনালের আগে আত্মবিশ্বাসী অধিনায়ক মাশরাফি বলেন, ‘আমাদের বোলিং বিভাগ দুর্দান্ত বল করছে। আমাদের ব্যাটিংও দারুণ হচ্ছে, বিশেষ করে টপঅর্ডার। আমরা এই সিরিজে তিন ম্যাচ জিতেছি। তাই ফাইনাল নিয়ে আমি অবশ্যই আত্মবিশ্বাসী।’

ফাইনালের সম্ভাব্য বাংলাদেশ একাদশ : তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, লিটন দাস/সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মোহাম্মদ মিঠুন, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, সাব্বির রহমান, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, মাশরাফি বিন মুর্তজা (অধিনায়ক), মেহেদী হাসান মিরাজ ও মুস্তাফিজুর রহমান।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের সম্ভাব্য একাদশ : সুনিল অ্যামব্রিস, শেই হোপ (উইকেটরক্ষক), ড্যারেন ব্রাভো, রোস্টন চেজ, জোনাথন কার্টার, জেসন হোল্ডার (অধিনায়ক), ফ্যাবিয়ান এলেন, অ্যাশলে নার্স, কেমার রোচ, শেল্ডন কটরেল ও শ্যানন গ্যাব্রিয়েল।

Advertisement