Beta

নিন্দুকদের ধন্যবাদ জানালেন ইমরুল!

১৭ এপ্রিল ২০১৯, ১৩:০৮ | আপডেট: ১৭ এপ্রিল ২০১৯, ১৩:৪০

স্পোর্টস ডেস্ক

বাংলাদেশের বিশ্বকাপ দল ঘোষণা হয়েছে গতকাল মঙ্গলবার। দু-একটা ছাড়া খুব বড় কোনো চমক ছিল না বাংলাদেশের এই দলে। তবে এই দলে জায়গা হয়নি অভিজ্ঞ ওপেনার ইমরুল কায়েসের। কিন্তু সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুজব ছড়াতে থাকে, বিশ্বকাপের দলে জায়গা না পাওয়ার হতাশায় নাকি অবসর নিতে যাচ্ছেন ইমরুল। তবে এই খবরটি উড়িয়ে দিয়েছেন এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান; বরং যাঁরা তাঁর সমালোচনা করছেন, তাঁদের ধন্যবাদ জানাতে ভুলেননি তিনি।

আজ বুধবার নিজের ফেসবুক পেজে ইমরুল লিখেছেন, ‘আমি একটা জিনিস কদিন যাবৎ লক্ষ করছি, আমাকে নিয়ে অনেকে পোস্ট করছেন আমি নাকি ক্রিকেট থেকে অবসর নিচ্ছি! এটা সত্যি, আমার জন্য অনেক দুঃখজনক এই খবরগুলো। আমার ১১ বছরের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে আমি সব সময় দেশ ও দেশের মানুষকে ভালো কিছু দেওয়ার চেষ্টা করছি! কখনো আল্লাহর রহমতে সফল হইছি, আবার ব্যর্থও হইছি। তবে যদি বাংলাদেশ ক্রিকেটে ১%ও কিছু দিতে পেরে থাকি, তো আমি নিজেকে সার্থক মনে করি। ক্রিকেট আমার ভালোবাসা, আমি বিশ্বকাপ স্কোয়াড থেকে বাদ পড়েছি তার মানে এই না যে ক্রিকেট ছেড়ে দেবো।’

ভবিষ্যতে সুযোগ পেলে দেশের ক্রিকেটে অবদান রখতে চান এই বাঁহাতি ওপেনার, ‘আমার সামনে যখনই সুযোগ আসবে বাংলাদেশ ক্রিকেটকে কিছু দেওয়ার আমি সর্বাত্মক চেষ্টা করব। সবাই আমার পাশে থাকবেন এবং আমার জন্য দোয়া করবেন।’

তবে নিন্দুকদেরও ধন্যবাদ জানাতে ভোলেননি ইমরুল, ‘ধন্যবাদ জানাচ্ছি আমার সকল ভক্ত ও হেটার্সদের!!’

বাংলাদেশের বিশ্বকাপ দলে একমাত্র চমক ছিল তরুণ পেসার আবু জায়েদ রাহির জায়গা পাওয়া। এ ছাড়া পেস আক্রমণে আছেন মুস্তাফিজুর রহমান ও রুবেল হোসেন। অধিনায়ক মাশরাফির সঙ্গে ইংলিশ পেস সহায়ক কন্ডিশনে এই দল ভালো করবে বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন নির্বাচকরা।

আর ব্যাটসম্যানদের মধ্যে মাহমুদউল্লাহর ইনজুরি থাকলেও বিশ্বকাপের আগেই সুস্থ হয়ে যাওয়ার আশা করছেন নির্বাচকরা। এ ছাড়া মুশফিকুর রহিম, মোহাম্মদ মিঠুন, সাব্বির রহমান আছেন অনুমিতভাবেই। স্পিনিং অলরাউন্ডার হিসেবে মেহেদী হাসান মিরাজ প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ খেলতে যাচ্ছেন। আর পেস বোলিং অলরাউন্ডার হিসেবে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ছিলেন অটোমেটিক চয়েস।

বিশ্বকাপের বাংলাদেশ দল : মাশরাফি বিন মুর্তজা (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, লিটন দাস, সৌম্য সরকার, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান (সহ-অধিনায়ক), মাহমুদউল্লাহ, মোহাম্মদ মিঠুন, সাব্বির রহমান, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, মুস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেন ও আবু জায়েদ রাহি।

Advertisement