Beta

আইসল্যান্ডের বিপক্ষে ড্র করল বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা!

১২ অক্টোবর ২০১৮, ১৫:১৯

স্পোর্টস ডেস্ক

গতকাল বৃহস্পতিবার স্তাদ দি রোদোরোতে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে আইসল্যান্ড ও ফ্রান্স। শেষ মুহূর্তের পেনাল্টিতে আইসল্যান্ডের বিপক্ষে ২-২ গোলে ড্র পেয়েছে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স। তরুণ খেলোয়াড় কিলিয়ান এমবাপ্পে ফ্রান্সের শেষ রক্ষা করেছেন।

২০১৬ সালে ইউরোতে আইসল্যান্ডকে ৫-২ গোলে হারিয়ে সেমিতে গিয়েছিল ফ্রান্স। তবে এই আইসল্যান্ড যে দুর্দান্ত, তার প্রমাণ পেয়েছে বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। ৩০ মিনিটের মাথায় গোল করে দলকে এগিয়ে নেন আইসল্যান্ডের জারনাসন। শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক খেলছিল ফ্রান্স। পরিসংখ্যানও বলছে, শতকরা ৬৬ ভাগ সময় ফ্রান্সের দখলে ছিল বল। তবে অন্যদিকে, ফ্রান্স মাত্র পাঁচবার লক্ষ্যে শট নিতে পেরেছে, যেখানে আইসল্যান্ড নয়বার সুযোগ নিয়েছে। কর্নারের দিক থেকেও আইসল্যান্ড এগিয়ে। তারা আটটি কর্নার পেলেও ফ্রান্স পেয়েছে মাত্র ছয়টি কর্নার। তবে ফাউলের দিক থেকেও এগিয়ে আইসল্যান্ডই। পুরো ম্যাচে চারটি হলুদ কার্ডের তিনটিই দেখেছেন আইসল্যান্ডের খেলোয়াড়রা। ফ্রান্সের হয়ে একমাত্র হলুদ কার্ড দেখেছেন জিরুড। 

তবে পরিসংখ্যানের চেয়ে বেশি নাটকীয়তা ছিল ম্যাচে। প্রথমার্ধে আইসল্যান্ড ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে থাকলেও দ্বিতীয়ার্ধে সমতায় ফেরার লক্ষ্যে মাঠে নামে ফ্রান্স। তবে কারি আরনাসনের গোলে ৫৮ মিনিটে আইসল্যান্ডের ও ফ্রান্সের মধ্যকার ব্যবধান বেড়ে দাঁড়ায় ২-০ তে।

তবে খেলার শেষ ১০ মিনিটেই সমতায় ফেরে ফ্রান্স। ৮৫ মিনিটের মাথায় এমবাপ্পের জোরালো একটি শটকে আটকাতে পারেননি আইসল্যান্ডের খেলোয়াড় এজলফসন। নিজেদের জালেই বল জড়িয়ে বসেন তিনি। ফলে আত্মঘাতী গোলে ফ্রান্সের ব্যবধান কমে দাঁড়ায় ২-১ গোলে। মূল খেলার শেষ মিনিটে এমবাপ্পে ফাউলের শিকার হন। ফলে ফ্রান্স পেয়ে যায় পেনাল্টি। শেষ সুযোগকে কাজে লাগাতে ব্যর্থ হননি এমবাপ্পে। দুর্দান্ত গোলে সমতা আনেন তিনি।

শেষ পর্যন্ত অধিকাংশ সময় এগিয়ে থেকেও ড্র নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয়েছে আইসল্যান্ডকে। তবে দুঃসংবাদ অপেক্ষা করছে বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের জন্য। প্রথমার্ধে খেলেই মাঠ ছেড়েছিলেন রাফায়েল ভারানে। ইনজুরির কারণে অস্বস্তিতে ভুগছিলেন তিনি। আগামী মঙ্গলবার নেশনস লিগে জার্মানির মুখোমুখি হবে ফ্রান্স। মেডিকেল রিপোর্টের ওপর নির্ভর করছে জার্মানির বিপক্ষে ভারানেকে ছাড়াই ফ্রান্স মাঠে নামবে কি না। ভারানেকে দলে না পাওয়া ফ্রান্সের জন্য চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে।  

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement