Beta

অধিনায়কত্বের দ্বিশতক পূর্ণ করলেন ধোনি!

২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৮:৫১

স্পোর্টস ডেস্ক

গত বছর জানুয়ারিতে সীমিত ওভারের ক্রিকেটের অধিনায়কত্ব ছেড়েছিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। তবে জাতীয় দল থেকে এখনো অবসর নেননি তিনি। এশিয়া কাপে দলের অধিনায়ক রোহিত শর্মা। ভারত এই আসরের ফাইনালে খেলা আগেই নিশ্চিত করায় নিয়মিত অধিনায়ককে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে। আজ মঙ্গলবার এশিয়া কাপের সুপার ফোরে নিজেদের শেষ ম্যাচে নেতৃত্ব দিচ্ছেন মিস্টার কুল। হঠাৎ প্রায় দুই বছর পর ধোনিকে অধিনায়কত্বে ফিরেয়ে এনে ভক্তদের চমকে দিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড।

অনেক সমালোচনার কারণে অধিনায়কত্ব ছাড়তে হয়েছিল ধোনিকে। খেলোয়াড়দের সঙ্গে বিরোধ, ভুল সিদ্ধান্ত নেওয়া কিংবা বোলার ব্যবহারে অপারগতা ইত্যাদি অভিযোগ এসেছিল তাঁর বিরুদ্ধে। তাই সে সময় অধিনায়কত্ব ছাড়েন তিনি। অধিনায়কত্ব ছাড়ার সময় তিনি ১৯৯ ম্যাচের নেতৃত্ব দিয়ে ভারতকে ১১০ ম্যাচে জয় এনে দিয়েছিলেন। আর দল হেরেছিল ৭৪ ম্যাচে। 

চলমান এশিয়া কাপে ভালো সময় কাটছে ভারতের। ফাইনালে খেলা নিশ্চিত করেছে আগেই। ফলে আফগানিস্তানের বিপক্ষে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে বিরাট কোহলির অনুপস্থিতিতে অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করা রোহিত শর্মাকে। বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে শিখর ধাওয়ানকেও। ফলে অধিনায়কত্বের দ্বিশতক পূর্ণ করলেন ধোনি।

তবে এটি নিয়ে তেমন উচ্ছ্বসিত নন ধোনি। তিনি বলেন, ‘আমি ১৯৯টি আন্তর্জাতিক একদিনের ম্যাচে অধিনায়কত্ব করেছি। এই ম্যাচে আমার ২০০তম অধিনায়কত্ব হচ্ছে। এটি সবই ভাগ্য বলে আমি বিশ্বাস করি। এগুলো আমার নিয়ন্ত্রণে নেই। আমি একবার অধিনায়কত্ব ছেড়েছি। অধিনায়ক হিসেবে ২০০তম ম্যাচ খেলতে পেরে ভারো লাগছে, তবে এগুলো কোনো বিষয় নয়।’

ধোনি ৭২টি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতেও অধিনায়কত্ব করেছেন, যার মধ্যে ৪১টিতে জিতেছে এবং ২৮টিতে হেরেছে ভারত।

ভারতের সবচেয়ে সফল অধিনায়কদের মধ্যে একজন ধোনি। ২০০৭ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জয় দিয়ে শুরু। এরপর ঘরের মাঠে তাঁর নেতৃত্বেই ২০১১ সালে ২৮ বছর পর ওয়ানডে বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হয় ভারত। ২০১৩ সালে ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিও জিতে নেয় ধোনির ‘টিম ইন্ডিয়া’।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement